বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

বিশ্বনাথে ফেইস বুকে কটুক্তি করায় এলাকায় তোলপাড় : নিন্দা প্রকাশ



sylheti_nasir_15896777745165ab3022c699.32576214.jpg_xlargeবিশ্বনাথ প্রতিনিধি : বিশ্বনাথে আল্লাহ ও মহানবী (স.) কে নিয়ে ফেইস বুকে কটুক্তি করায় এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিভিন্ন সংবাদ পত্রে কটুক্তির সংবাদ প্রকাশ হওয়ায় সকাল থেকে পত্রিকা ষ্টলে পাঠকদের ছিল ভিড়। এনিয়ে গত দুইদিন ধরে সর্বত্রই চলছে আলোচনা-সমালোচনা। উপজেলার বৈরাগী বাজারসহ আশপাশ এলাকায় যে কোন ধরনের নাশকতার আশংকায় বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন রয়েছেন। আজ শুক্রবার বাদ জুম্মা উপজেলার বৈরাগী বাজারে গ্রেফতারকৃত কটুক্তিকারিদের দৃষ্টান্তমূলখ শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভার আয়োজন করেছে ধর্মপ্রাণ মুসল্লিগণ। উপজেলায় সংখ্যালঘু পরিবারের সদস্যরা আতংকে রয়েছেন বলে জানাগেছে। এদিকে,আল্লাহ ও মহানবী (স.)কে নিয়ে কটুক্তি করায় বিভিন্ন রাজনৈতিক,সামাজিক সংগঠন নিন্দা প্রকাশ করেছেন। অপরদিকে, বৈরাগী বাজারসহ আশপাশ এলাকায় সংখ্যালঘু পরিবারের বাড়িগুলোতে পুলিশের টলহ জোরধার রয়েছে। 
খোঁজ নিয়ে জানাযায়, বিশ্বনাথে গত মঙ্গলবার আল্লাহ ও মহানবী (স.) কে নিয়ে ফেইসবুকে কটুক্তি করার প্রতিবাদে এলাকাবাসি ফুসে উঠেন। মঙ্গলবার রাত থেকে তারা কটুক্তিকাদিরের গ্রেফতারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল সভা অব্যাহত রাখেন। অবশেষ ওই রাতেই পুলিশ ফেইস বুকে কটুক্তিকারি দুই যুবক গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। ফলে এলাকার পরিস্থিতি শান্ত হয়ে আসে। গতকাল হরতাল থাকায় বিভিন্ন সরকার-বেসরকারি অফিস,ব্যবসা-প্রতিষ্টান,সকল ধর্মের মানুষ এঘটনায় নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা করার খবর পাওয়া যায়। সকল ধর্মের মানুষ গ্রেফতারকৃতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।
বিএনপির নিন্দা : বিশ্বনাথে আল্লাহ ও মহানবী (স.) কে নিয়ে কটুক্তি করায় উপজেলা বিএনপি ও সহযোগি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন। নিন্দাকারিরা হলেন-উপজেলা বিএনপির সভাপতি জালাল উদ্দিন চেয়ারম্যান, সাধারণ সম্পাদক গৌছ খান, যুগ্ম-সম্পাদক আবদুল হাই, সাংগঠনিক সম্পাদক কবির হোসেন ধলা মিয়া চেয়ারম্যান, দপ্তর সম্পাদক বশির আহমদ, যুবদলের আহবায়ক আহমদ-নুর-উদ্দিন, যুগ্ম-আহবায়ক সুরমান খান, শামীমুর রহমান রাসেল, নানু মিয়া, মুসলিম আলী, সেচ্ছাসেবকদলের আহবায়ক মোহাম্মদ কাওছার খান, সদস্য সচিব ফখরুল ইসলাম, যুগ্ম-আহবায়ক আবদুল হাসিব মেম্বার, আশিকুর রহমান রানা, তাজ উদ্দিন আহমদ কিনু, জোয়াদ আলী, শ্রমিকদলের আহবায়ক মনির মিয়া, যুগ্ম-আহবায়ক আনসার আলী, ছাত্রদলের আহবায়ক শামছুল ইসলাম, যুগ্ম-আহবায়ক আমির আলী, আলাল আহমদ, শেখ ফরিদ, তারেক আহমদ খজির, বিশ্বনাথ ডিগ্রি কলেজ ছাত্রদলের আহবায়ক মানিক মিয়া।
হেফাজতের নিন্দা : আল্লাহ ও মহানবী (স.) কে নিয়ে ফেইসবুকে কুটুক্তি করায় উপজেলা হেফাজতে ইসলামের নেতৃবৃন্দ নিন্দা জানিয়েছেন। নিন্দাকারিরা হলেন-সংগঠনের আহবায়ক মাওলানা কামরুল ইসলাম ছমির, যুগ্ম-আহবায়ক মাওলানা শিব্বির আহমদ মাওলানা শামছুল ইসলাম, হাবিবুর রহমান ফারুক, আবদুল মতিন, আবদুল হক, সাহেদ আহমদ, ওমর ফারুক, দিলোয়ার হোসেন, মিছবাউর রহমান, ময়নুল ইসলাম, ফখরুল ইসলাম, হাবিবুর রহমান।
হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ : বাংলাদেশ হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান, ঐক্য পরিষদ ও বাংলাদেশ পূজা উদ্‌যাপন পরিষদ বিশ্বনাথ শাখার নেতৃবৃন্দ নিন্দা প্রকাশ করেছেন। তারা হলেন হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ বিশ্বনাথ উপজেলা শাখার সভাপতি মানিক লাল দে,পিনাক চক্রবর্ত্তী, নিশি কান্ত পাল, রূপক কুমার দে, সমবেন্দ্র বৈদ্য, জয়ন্ত আচার্য্য, অজিত পাল,বাদল দে, শংকর দাশ, রমাকান্ত দে,তপন দেবরায়, মুক্তি যোদ্ধা রনজিত ধর রণ মেম্বার অনাথ বৈদ্য সাংবাদিক স্বপন দাশ কানু রঞ্জন দে, গৌরাঙ্গঁ মালাকার প্রমুখ।
নিন্দাকারিরা বৈরাগীবাজারে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেয়ায় অনাকাঙ্খিত ঘটনার প্রেক্ষিতে গভীর দুঃখ ও নিন্দা প্রকাশ করা হয়। বৈরাগীবাজারের ঘটনার সাথে জড়িত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে সুষ্ঠু তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রশাসনের প্রতি দাবী জানানো হয়। সভায় সকল ধর্মের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে বলা হয় যে, কোন ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেয়া এদেশের ধর্মীয় সংখ্যা লঘুরা কখনো সমর্থন করে না। এমতাবস্থায় তদন্তের মাধ্যমে দোষী ব্যক্তিদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবী জানানো হয়।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত