বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বড়লেখার দুর্গম এলাকায় প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপনে জেলা প্রশাসক উপকৃত হবে ৬ টি গ্রামের শিক্ষার্থীরা



Barlekha Pic Dhimai Primaray Schoolজালাল আহমদ: বড়লেখার দুর্গম পাহাড়ি এলাকা ডিমাই গ্রামে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়েছে। জাপানের একটি বেসরকারি সংস্থার আর্থিক সহায়তা, স্থানীয় ইউএনও’ ঐকান্তিক প্রচেষ্টা, শিক্ষানুরাগী কামরান চৌধুরীর জমি দান এবং এলাকাবাসীর সার্বিক সহযোগিতায় প্রতিষ্ঠিত হয়েছে এলসারিন উত্তর ডিমাই প্রাইমারী স্কুল। বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হওয়ায় হওয়ায় উপকৃত হবে একটি ওয়ার্ডের ৬ টি গ্রামের শিশু শিক্ষার্থীরা। রোধ হবে ঝরেপড়া। দুর্গম এলাকার শিশুরা পাবে আলোর দিশা। 
গত শুক্রবার বিকেল ৫টায় উত্তরডিমাই এলাকায় স্থাপিত বিদ্যালয়ের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান। ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন শেষে সুবেশিষ্টত টিলার ওপরে কামরান চৌধুরীর বাগান বাড়িতে আয়োজন করা হয় মতবিনিময় সভা। বিদ্যালয়ের ভূমিদাতা ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি কামরান চৌধুরীর সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক। আব্দুল মালিক ঝুনাই’র উপস্থাপনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার নেপথ্যের কারিগর বড়লেখা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ আমিনুর রহমান, রাজনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাশহুদুল করিম, বড়লেখা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সোয়েব আহমদ, ইউপি সদস্য সিরাজ উদ্দিন, সৈয়দ লুৎফুর রহমান, শিক্ষানুরাগী আব্দুল জলিল, সাবেক ইউপি সদস্য ইসলাম উদ্দিন।
প্রসঙ্গত, বিদ্যালয়ের জায়গা দান করেন জেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি এবং শিক্ষানুরাগী কামরান চৌধুরী। তিনি ৩৩ শতক ভূমি দান করেন। ভবন প্রতিষ্ঠায় আর্থিক অনুদান দেয় জাপানের একটি বেসরকারি সংস্থা। বড়লেখা ইউএনও নেপথ্যে থেকে বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠায় কাজ করেন। এলাকার শিক্ষাবঞ্চিত শিশুদের জন্যে এমন মহৎ কাজ করায় এলাকার মানুষ তাঁকে আজীবন শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করবে।
এদিকে এর আগে জেলা প্রশাসক স্বস্ত্রীক বড়লেখার মাধবকু- জলপ্রপাত এলাকা পরিদর্শন করেন। বিদ্যালয়ের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন শেষে বড়লেখার হাকালুকিতে অবস্থিত পাখিবাড়িতে পাখির কলতান উপভোগ করতে যান। জেলা প্রশাসক সীমান্তবর্তী এ উপজেলার প্রাকৃতিক অপার সৌন্দর্য্যে মুগ্ধ হন।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত