বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

সিরিয়ার রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার প্রশ্নে ওবামার কড়া সুর




0
ডেস্ক রিপোর্ট : সিরিয়া সরকার রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার করে থাকলে তা যুক্তরাষ্ট্রের জন্য “খেলা পরিবর্তন” করার পরিস্থিতি তৈরি করতে পারে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা।

তবে রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের প্রমাণ এখনও প্রাথমিক পর্যায়ে থাকায় সিরিয়ার গৃহযুদ্ধে হস্তক্ষেপ করতে যুক্তরাষ্ট্র তাড়াহুড়া করবে না বলে জানিয়েছেন তিনি।
শুক্রবার জর্ডানের বাদশা আবদুল্লাহর সঙ্গে বৈঠকে বসার আগে হোয়াইট হাউসে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে ওবামা এসব কথা বলেন ।
সিরিয়া তার নিজের জনগণের বিরুদ্ধে সম্ভবত রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার করেছে, যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দাদের এমন অনুমান প্রকাশের একদিন পর অনুষ্ঠিত ওই সম্মেলনে ওবামা বিষয়টি নিয়ে কঠোর সুরে কথা বলেন। তবে সিরিয়ায় দ্রুত হস্তক্ষেপের বিরোধিতা করে সবাইকে ধৈর্য্য ধরার আহ্বান জানান তিনি।
তিনি বলেন, “বেসামরিক জনসাধারণের ওপর মর্টারের গোলা নিক্ষেপ করে যথেচ্ছভাবে তাদের হত্যা করা ভয়ানক ব্যাপার, এরপর নিজের বেসামরিক জনগণের ওপর ব্যাপকবিধ্বংসী অস্ত্র ব্যবহার করা আন্তর্জাতিক আইন ও রীতি লঙ্ঘণের আরেক নমুনা।”
“এটা খেলার অবস্থা পাল্টে দেওয়ার পরিস্থিতি তৈরি করছে,” বলেন তিনি।
তবে সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদ যুক্তরাষ্ট্র নির্দেশিত “রেড লাইন” অতিক্রম করেছে এমন ঘোষণা দেওয়ার সম্ভাবনা নাকচ করে দিয়ে ওবামা যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দাদের মূল্যায়নকে “প্রাথমিক পর্যালোচনা” বলে উল্লেখ করেন।
যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকজন আইনপ্রণেতা সিরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক হস্তক্ষেপ করার ও দেশটির বিদ্রোহীদের অস্ত্র সহায়তা দেওয়ার দাবী জানিয়েছেন।
অবশ্য যুক্তরাষ্ট্র কংগ্রেসে পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরির ব্রিফের পর অপর কয়েকজন আইনপ্রণেতা অপেক্ষাকৃত নমনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।বিমানটি বিধ্বস্ত হওয়ার সময় জাবুলের ওই অংশে বিদ্রোহীদের কোনো তৎপরতা ছিল না বলে দাবী করেছে আইএসএএফ।
প্রাদেশিক পুলিশ প্রধান রজ লেওয়ানি জানিয়েছেন, খারাপ আবহাওয়ার কারনে শাহজই জেলায় বিমানটি বিধ্বস্ত হয়।
সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে গজনি ও কান্দাহার প্রদেশের মধ্যবর্তী জাবুলে ব্যাপক সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে।
এ সবের মধ্যে চলতি এপ্রিল মাসের প্রথমদিকে চালানো এক আত্মঘাতী বোমা হামলায় যুক্তরাষ্ট্রের এক তরুণ কূটনৈতিকসহ কয়েকজন সামরিক ও বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়।
এছাড়া একই মাসে আরো কয়েকটি হামলায় বহু আফগান নাগরিক হতাহত হয়।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত