বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

রাজনগরের দেবীপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবনে ফাটল-খোলা আকাশের নিচে ক্লাস চলছে



Rajnogor Primary School  picনিজস্ব প্রতিবেদক : নির্মানের ১৮ বছরের মাথায় ঝুকিপূর্ণ হয়ে উঠল রাজনগর উপজেলার দেবীপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন। ভবনের কলাম বীমে মারাত্মক ফাটল ও ছাঁদ বেয়ে পানি পড়ায় ঝুকিপূর্ণ উল্লেখ করে উপজেলা ইঞ্জিয়ার তা পরিত্যক্ত ঘোষণা করেন। জানা যায়, রাজনগর উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ রুবাইয়াত জামান স্কুলটি পরিদর্শণ করে তাৎক্ষনিক ভাবে বিদ্যালয়ের কোমলমতি ছাত্র-ছাত্রীদের সরিয়ে দিয়ে সেখানে ক্লাস না নেয়ার জন্য পরামর্শ দিয়েছেন। ফলে খোলা আকাশের নিচে রোদ-বৃষ্টির মাঝেই চলছে ছাত্র-ছাত্রীদের পরীক্ষা ও শ্রেণী কার্যক্রম ক্লাস। উপজেলা প্রথামিক শিক্ষা ও প্রকৌশল অফিস সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পাঁচগাঁও ইউনিয়নের দেবীপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হয় ১৯২৭ সালে। দীর্ঘ ৬০ বছর পর ১৯৯৫ সালে ৫ লক্ষ ৪৫ টাকা ব্যায়ে নির্মান করা হয় একটি এক তলা ভবন। এর কাজ সমাপ্ত হয় ১৯৯৫ সালের ১০ আগষ্ট। কিন্তু মাত্র ১৮ বছরের মাথায় এ স্কুল ভবনটি ঝুকিপূর্ণ হওয়ায় পরিত্যক্ত ঘোষণা করতে হল। বিদ্যালয়টি সরেজমিন পরিদর্শন করে দেখা যায়, স্কুলের ৩ জন শিক্ষক-শিক্ষিকা ১২০ জন ছাত্র-ছাত্রীর পরীক্ষা নিচ্ছেন খোলা আকাশের নিচে। প্রথম শিফটের পরীক্ষা শেষ হওয়ায় চলছে পরবর্তী শিফটের পরীক্ষা। বিদ্যালয়ের একমাত্র এ ভবনে কলাম ভীম ফেটে রড বেরিয়ে গেছে। ছাঁদ বেয়ে পানি পড়ছে। ভয়ে ছাত্রছাত্রীরা ভবনের কাছে আসছেনা।
বিদ্যালয়ের ৩য় শ্রেণীর ছাত্র সাকিবুল ইসলাম জানায়, ‘ঢাকায় ভবন ধসে মানুষ মারা যাওয়ায় এখন এ ভবনে ক্লাস করতে ভয় পাচ্ছি। কখন জানি এটি ভেঙ্গে পড়ে।’ একই ভাবে আতঙ্কিত ৫ম শ্রেণীর ছাত্র মোছা আহমদ সাবেল। সে জানায়, ক্লাস রুমে ঢুকে উপরের দিকে তাকাই না। ভয় লাগে। স্কুলের প্রধান শিক্ষক আব্দুশ শহীদ জানান, এ ভবনটি নির্মানের সময়ও ম্যানেজিং কমিটি ও এলাকাবাসী নিম্নমানের কাজের অভিযোগ করলে তা প্রমাণিত হয়। তখন কিছু কাজ পূণরায় করে দেন ঠিকাদার। এখন এ ভবনটির সমস্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় আমি শিক্ষা অফিসকে লিখিত জানাই। উপজেলা প্রকৌশলী মোহম্মদ রুবাইয়াত জানান, ভবনের ভীমে মারাত্মক ধরনের ফাটল দেখা দেয়ায় যে কোন সময় বড় ধরণের দূর্ঘটনা ঘটতে পারে। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ হয়েছে। একটি ভবনের ব্যবস্থা হচ্ছে। রাজনগর উপজেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার ইফতেকার আহমদ জানান, উপজেলা ইঞ্জিনিয়ার ভবনটি দেখে এটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করেছেন এটি এই মূহুর্থে না করলে চলতো। এর চেয়েও অনেক ঝুকিপূর্ণ ভবনে ক্লাস হচ্ছে। এভাবে ঝুকিপূর্ণ ভবন খুঁজতে থাকলে বেশিরভাগ স্কুলেই ক্লাস চালানো যাবেনা।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত