সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

কমলগঞ্জে ধলাই নদীর পানি কমতে থাকায় উপরাংশে উন্নতি, নিম্নাঞ্চলে অবনিত। চিফ হুইপের দূর্গত এলাকা পরিদর্শন



নুরুল ইসলাম শেফুল : উজানে তেমন বৃষ্টি না হওয়ায় ১১ মে শনিবার ভোর থেকে কমলগঞ্জে ধলাই নদীর পানি কমতে শুরম্ন করে। ধলাই নদীর পানি কমতে শুরম্ন করায় কমলগঞ্জ উপজেলার উপরাংশ কমলগঞ্জ সদর, আলীনগর ইউনিয়নে পস্নাবনের পানি নেমে গিয়ে উন্নতি হলেও তিনটি ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চলে আরও অবনতি হয়েছে। জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ পানিবন্দি ও ঘূর্ণিদূর্গত এলাকা পরিদর্শন করে ত্রাণ বিতরণ করেন। শনিবার বিকাল সাড়ে ৩ টায় চিফ হুইপ উপাধ্যড়্গ এম এ শহীদ দূর্গত এলাকা পরিদর্শন করেন। উজানে ভারতীয় পাহাড়ি এলাকায় উলেস্নখযোগ্য বৃষ্টিপাত না হওয়ায় ভোর থেকে কমলগঞ্জে ধলাই ও লাঘাটা নদীর পানি কমতে শুরম্ন করে। ফলে কমলগঞ্জ উপজেলার কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়নের চৈতন্যগঞ্জ ও রহিমুপর ইউনিয়নের কান্দিগাঁও গ্রাম থেকে পানি সরে গিয়ে অবস্থার বেশ উন্নতি হয়। তবে কমলগঞ্জ উপজেলার মাধবপুর, আদমপুর ,কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়নের পানি নিম্নাঞ্চল পতনউষার ইউনিয়নের ১১ টি গ্রাম যথাক্রমে ধূপাটিলা, পতনউষার, নোয়াগাঁও, রামেশ্বরপুর, গোপীনগর শ্রীরামপুর, হালাবাদী, মহেশপুর জগন্নাথপুর, চাঁনগাঁও ও বৃন্দাবনপুর, মুন্সীবাজার ইউনিয়নের ২টি গ্রাম রম্নপশপুর,বনবিষ্ণুপুর ও শমশেরনগর ইউনিয়নের ৩টি কেছুলুটি, সতিঝিরগাঁও ও মরাজানের পার গ্রামের অবনতি হয়েছে। এসব গ্রামের বোরো ফসল গত ৫ দিন ধরে পানিতে নিমজ্জিত হয়ে সম্পূর্ণরম্নপে বিনষ্ট হয়ে গেছে। এদিকে শনিবার বেলা সাড়ে ৩ টায় মৌলভীবাজার-৪ আসনের সাংসদ ও জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ উপাধ্যড়্গ এম এ শহীদ পতনউষার ইউনিয়নে পানিবন্দি ও দূর্গত এলাকা পরিদর্শন করেন। কমলগঞ্জ উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা মোঃ আছাদুজ্জামান জানান, চিফ হুইপ পতনউষারে দূর্গত ২৫ জনকে নগদ ২ হাজার টাকা করে ও আরও ৫৫ জনকে নগদ ১ হাজার টাকা করে মোট ১ লাখ ৫ হাজার টাকা প্রদান করেন। তাছাড়া দূর্গত সাধারণ মানুষজনের মাঝে ২ কেজি করে চিড়া ও আড়াই’শ গ্রাম করে চিনি প্রদান করেন।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত