বৃহস্পতিবার, ২ জুলাই ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৮ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Sex Cams

মৌলভীবাজারে ভুঁইফোড় প্রতিষ্ঠানের প্রতারণা



মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি : মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটির নামে একটি ভুঁইফোড় প্রতিষ্ঠান মৌলভীবাজার সদর উপজেলা থেকে শতাধিক নিয়োগপ্রাপ্তর কাছ থেকে ১০ লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। মাসোয়ারা প্রদানের আশ্বাস দিয়ে নিয়োগপ্রাপ্তদের পাঁচ মাসের বেতন প্রদান না করে নিয়েছে টাল-বাহানার আশ্রয়। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, সবুজ ছায়া মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ নামীয় একটি এনজিও সংস্থা গ্রাম জনপদে স্বাস্থসেবা নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে মৌলভীবাজার সদর উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের প্রতিটিতে একজন সুপারভাইজার এবং ৮ জন মাঠকর্মী নিয়োগ করে চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে। গ্রাম-জনপদের মানুষের চিকিৎসাসেবা নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে আগ্রহী চিকিৎসার্থীদের কাছে থেকে ডাক্তারি-ফি বাবত মাথাপিছু অগ্রিম ৫০ থেকে ৭০ টাকা আদায় করে মাঠকর্মীরা। রেজিস্টার্ড ডাক্তারের কর্তৃক দু’সপ্তাহ অন্তর রোগীদের চিকিৎসাসেবা প্রদানের প্রতিশ্রুতি দিয়ে মাঠকর্মীরা টাকা আদায় করে। কিন্তু এ অগ্রিম টাকা আদায়ের পর কোন কোন ইউনিয়নে পাঁচ মাসেও ডাক্তারের দেখা মিলেনি। কোন কোন ইউনিয়নে পাসকৃত ডাক্তারের পরিবর্তে অচেনা এলএমপি ডাক্তার দিয়ে চিকিৎসা প্রদান করা হয়েছে ‘আই ওয়াশ’ হিসেবে। এদিকে সুপারভাইজার ও মাঠকর্মী নিয়োগের পর প্রতি নিয়োগপ্রাপ্তদের কাছ থেকে ‘টুল বক্স’ সরবরাহের নামে মাথাপিছু ৬ হাজার টাকা আদায় করা হয়েছে। তার আগে নিয়োগ প্রাপ্তদের কাছ থেকে ফরম ফিলআপের নামে আদায় করা হয়েছে মাথাপিছু ২শ’ টাকা করে। মাঠকর্মীরা অভিযোগ করেছেন, চিকিৎসাসেবা প্রদানের নামে ৫০ থেকে ৭০ টাকা অগ্রিম আদায় করে চিকিৎসার্থীদেরকে চিকিৎসা প্রদান না করায় তাদেরকে প্রতারক হিসেবে ঠাওরানো হচ্ছে। অন্যদিকে পাঁচ মাস চাকরি করার পরও সুপারভাইজার ও মাঠকর্মীদের কোন বেতন দেয়া হয়নি। সুপারভাইজারকে মাসিক ৮ হাজার এবং মাঠকর্মীদেরকে ৬ হাজার টাকা বেতন দেয়া হবে বলে নিয়োগ দেয়া হয়েছিল। নিয়োগপ্রাপ্ত এক মহিলা মাঠকর্মী বলেছেন, দাদন এনে তিনি ৬ হাজার টাকা জমা দিয়েছিলেন টুল বক্সের জন্য। ভরসা ছিল, বেতন পেয়ে এ টাকা পরিশোধ করবেন। এখন প্রতারণার জালে আটকা পড়েছেন।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত