মঙ্গলবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

খালেদার আত্মসমর্পণ: জেল না মুক্তি?



2015_06_28_11_07_18_1wvdL4IphYaWPDNlUVUTDdLpjaLYHl_originalনিউজ ডেস্ক :: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া গ্রেফতার হওয়ার গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে দীর্ঘদিন ধরে।৫ জানুয়ারির নির্বাচনের আগে ও পরে আওয়ামী নেতা, মন্ত্রী ও এমপিরা বেশ হরহামেশাই বলেছেন, খালেদাকে লাল দালানে (জেলে) যেতে হবে। তাহলে আজকেই কি সেই দিন?
এতদিন খালেদাকে জেলে নেওয়ার কোন উপযুক্ত কারণ ছিল না সরকারের কাছে। তবে এবার কিন্তু খালেদাকে জেলে নেওয়ার যথেষ্ঠ কারণ রয়েছে আদালতের কাছে। হাইকোর্টের আদেশে নাইকো দুর্নীতি মামলায় বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণ করেছেন তিনি। এখন আদালতই নির্ধারণ করবেন খালেদা জেলে যাচ্ছেন না জামিন পেয়ে বাসায় ফিরবেন।
তবে সরকারের মন্ত্রীরা ইতোমধ্যে খালেদা জিয়াকে নির্মূল করার ঘোষণাও দিয়েছেন। তাহলে আজকের এই দিনটিকেই কি কাজে লাগাচ্ছে সরকার এ প্রশ্ন এখন বিএনপি নেতাকর্মীসহ সাধারণ মানুষের মনে। তবে সরকার এ ঝুঁকি নিবেন না বলেও মনে করছেন অনেকে। কারণ খালেদা জিয়া জেলে গেলে দেশে আবারও আন্দোলন-সংগ্রাম শুরু হবে এবং অরজকতা সৃষ্টি হবে। তাই এ ঝুঁকি নাও নিতে পারে সরকার।
গতকাল রোববার জাতীয় প্রেসক্লাবে এক অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে রাজনীতির ময়দান থেকে চিরতরে নির্মূল করাই এখন রাজনীতির প্রধান কাজ।
একইদিন প্রেসক্লাবের অপর একটি অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, জনগণ আওয়ামী লীগকে ভোট দেবে। তারা ‘ধানের শীষে’ বিশ্বাস করে না। ধানের শীষে ভোট দেবে না। ধানের শীষ বাংলার মাটিতে থাকবে না।
এদিকে গত ১৬ নভেম্বর রংপুরে নিজের বাড়ি পল্লী নিবাসে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া দেশে ফিরলেই গ্রেফতার হতে পারেন।
তিনি আরও বলেন, বেগম জিয়ার নামে মামলা আছে, প্রমাণও আছে। এবং এ মামলার হাত থেকে তিনি রক্ষা পাবেন বলে মনে হয় না। প্রমাণাদি লিখিত, মৌখিক কোনো প্রমাণ না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত