বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

দুবাইয়ে এক বাংলাদেশীর জেল



downloadপ্রবাস ডেস্ক :: দুবাইয়ে অপহরণের দায়ে জেল দেয়া হয়েছে এক বাংলাদেশীকে। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, সে পাওনা টাকা আদায়ের জন্য নিজের এক নিকট আত্মীয়কে স্বদেশী অন্য কয়েকজনের সহায়তায় অপহরণ করেছিল।

এরপর তাকে তারা একটি কক্ষে আটকে রাখে এবং তার কাছে টাকা দাবি করে। এ অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় মঙ্গলবার দুবাইয়ের ক্রিমিনাল কোর্ট ওই বাংলাদেশীকে এক বছরের জেল দিয়েছে। এ খবর দিয়েছে গালফ টুডে। বলা হয়েছে, সম্পর্কে চাচা হন এমন এক ব্যক্তি এম.জে আদ্যক্ষরযুক্ত এক বাংলাদেশী ও তার এক পলাতক বন্ধুকে চাকরির ভিসা দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। বিনিময়ে তাদের কাছ থেকে তিনি হাতিয়ে নেন ৩৭ হাজার দিরহাম। কিন্তু তিনি তাদেরকে ভিসাও দিতে পারছিলেন না, টাকাও ফেরত দেন নি দীর্ঘদিন পর্যন্ত। শেষ পর্যন্ত ঘটনার শিকার ওই দুই ব্যক্তি বাংলাদেশী অন্য তিনজনের সহায়তায় ২০১৩ সালের ৮ই জুন অপহরণ করেন তার ভাতিজা আর.এ আদ্যক্ষরযুক্ত বাংলাদেশীকে।

এ কাজে তাদেরকে যে তিন বাংলাদেশী সহায়তা করে তাদের মধ্যে রয়েছে ডেকোরেটর এস.এম (৩০), একটি স্বাস্থ্য সেবাকেন্দ্রের শ্রমিক এস.এস (২৪) ও শ্রমিক এম.আই (৩৫)। এরা আর.একে অপহরণ করে আমআইয়ের এ-১ সাতওয়া এলাকার এপার্টমেন্টের একটি কক্ষে আটকে রাখে চারদিন। এ সময়ে তারা তার কাছে মুক্তিপণ দাবি করে। তার নিকট আত্মীয়দের কাছ থেকে অর্থ সংগ্রহ করে দিতে নির্দেশ দেয়। ওদিকে খবর চলে যায় পুলিশে। তৎপর হয় পুলিশ। প্রথম দফায় পুলিশ আটক করে এসএম, এসএস এবং এমআইকে।

ক্রিমিনাল কোর্ট তাদেরকে অভিযুক্ত করে এক বছর করে জেল দিয়েছে। সাজা শেষে তাদেরকে দেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে। তবে সম্প্রতি আটক করা হয়েছে এম.জেকে। তাকে মঙ্গলবার এক বছরের সাজা দেয়া হয়েছে। এই সাজা ভোগের পর তাকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো হবে। বলা হয়েছে, আর.একে আলোচনার কথা বলে ডেকে নেয় আরএ।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত