শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

প্রধানমন্ত্রী উন্নয়নে সহযোগিতা চাইলেন



21নিউজ ডেস্ক ::
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের ঐতিহাসিক এক সন্ধিক্ষণে দাঁড়িয়ে। দলমত আর বিভক্তির ঊর্ধ্বে থেকে প্রত্যেককে এই উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় শরিক হতে হবে। দ্বিতীয় মেয়াদে সরকার গঠনের দুই বছর পূর্তি উপলক্ষে জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে এ আহ্বান জানান তিনি। মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা থেকে রাত ৮ পর্যন্ত ভাষণ দেন তিনি। ভাষণে সরকারের নানা উন্নয়নের দিক তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০২১ সালের আগেই বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে এবং ২০৪১ সালের আগেই উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হবে। এর জন্য দরকার সকলের ঐক্যবদ্ধ প্রয়াস। বাংলাদেশ উন্নয়নের এক গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় দাঁড়িয়ে রয়েছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, আসুন দলমত নির্বিশেষে আমরা এই উন্নয়নে অংশ নেই। বাঙালি মুক্তিযোদ্ধার জাতি। এই জাতিকে কেউ দমিয়ে রাখতে পারবে না। সকলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করলে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ে তোলা সময়ের ব্যাপার মাত্র।প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ জাতিসংঘের লক্ষ্যমাত্রা এমডিজি এবং এসডিজি বাস্তবায়নে সরকার বদ্ধপরিকর। যে কোনো উন্নয়নে বাংলাদেশ এখন বিশ্বকে চ্যালেঞ্জ করতে পারে।
তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে দেশে উন্নয়ন হয়। আর বিএনপি-জামায়াত সেই উন্নয়ন ঠেকাতে মরিয়া হয়ে ওঠে। তাদের ধ্বংসাত্মক ষড়যন্ত্র ক্ষতি করেছে বটে, কিন্তু উন্নয়নের ধারাবাহিকতা ঠেকাতে পারেনি। সরকারকে সহযোগিতার জন্য সংসদের বিরোধী দলকে ধন্যবাদ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিরোধী দল সংসদ এবং সংসদের বাইরে সরকারকে সহযোগিতা করে যাচ্ছে। তাদের গঠনমূলক সমালোচনা গণতন্ত্রকে আরও শক্তিশালী করছে। এসময় তিনি ছিটমহল এবং সমুদ্রসীমার বিরোধ নিষ্পত্তির বিষয়টিও গুরুত্বের সঙ্গে তুলে ধরেন।উল্লেখ্য, ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর নবম সংসদ নির্বাচনে জয়ী হয়ে ক্ষমতায় আসে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন জোট। এরপর ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়ী হয়ে ১২ জানুয়ারি সরকার গঠন করে আওয়ামী লীগ। এই নির্বাচন বর্জন করে দেশের অন্যতম প্রধান রাজনৈতিক দল বিএনপি।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত