রবিবার, ২১ জুলাই ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

স্মরণসভায় ছিলেন না চলচ্চিত্রের কেউ!



11বিনোদন ডেস্ক ::
চাষী নজরুল ইসলামচাষী নজরুল ইসলামআমাদের মুক্তিযুদ্ধকে সেলুলয়েডে ফুটিয়ে তুলেছেন দেশের যে কজন চলচ্চিত্র পরিচালক, চাষী নজরুল ইসলাম তাঁদের অগ্রদূত। একটি প্রজন্ম মুক্তিযুদ্ধকে উপলব্ধি করেছে এই পরিচালকের সিনেমার মধ্য দিয়ে। গতকাল মঙ্গলবার ছিল বরেণ্য এই পরিচালকের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী। অথচ এ উপলক্ষে আয়োজিত তাঁর স্মরণসভায় দেখা যায়নি চলচ্চিত্রশিল্পের তেমন কোনো ব্যক্তিত্বকে। আর এ নিয়ে আক্ষেপ করেছেন প্রয়াত এই পরিচালকের সহধর্মিণী জ্যোৎস্না কাজী।

চাষী নজরুল ইসলামের সহধর্মিণী জ্যোত্স্না কাজী বলেন, ‘চাষী নজরুল ইসলাম চারবার চলচ্চিত্র সমিতির সভাপতি ছিলেন। নির্মাণ করেছেন অনেক কালজয়ী চলচ্চিত্র। কিন্তু আজ তাঁর স্মরণসভায় চলচ্চিত্র অঙ্গনের কাউকে দেখতে পাচ্ছি না। এটা অত্যন্ত দুঃখজনক।’

মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জের এই স্মরণসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক রাষ্ট্রপতি এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী। স্মরণসভায় বক্তব্য রাখেন বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী, প্রবীণ চলচ্চিত্র নির্মাতা সাঈদুর রহমান সাঈদ, সাংবাদিক মাহফুজউল্লাহ, এ জেড এম জাহিদ হোসেন, রফিকুল ইসলাম রফিক, কণ্ঠশিল্পী মনির খান, চিত্রনায়ক মান্নার সহধর্মিণী শেলী মান্না, চাষী নজরুলের কন্যা আন্নী ইসলাম, ভাই চাষী মফিজুল ইসলাম ও চাষী সিরাজুল ইসলাম।

এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, ‘চলচ্চিত্রের মাধ্যমে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে সচেতনভাবে উপস্থাপন করেছেন চাষী নজরুল ইসলাম। চলচ্চিত্র তথা শিল্প ও সংস্কৃতির দায় মেটাতে চাষী নজরুলের মতো একজন মানুষ খুব দরকার।’

আলোচনা সভাটির আয়োজন করেছিল চাষী নজরুল ফাউন্ডেশন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ফাউন্ডেশনের সভাপতি জ্যোত্স্না কাজী।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত