মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

‘আওয়ামী লীগকে অবৈধ বলা বিএনপির ধৃষ্টতা’



22নিউজ ডেস্ক ::
আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, ‘আওয়ামী লীগ এ দেশের গণমানুষের দল হিসেবে ১৯৭১ সালের বহু আগে থেকেই প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। আওয়ামী লীগকে অবৈধ বলার ধৃষ্টতা ভবিষ্যতে বিএনপির কেউ দেখাবে না, এটা আমরা প্রত্যাশা করি।’বুধবার ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগের সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে হানিফ এসব কথা বলেন। এতে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সংবাদ সম্মেলনের বক্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানান হানিফ।আওয়ামী লীগের সংবাদ সম্মেলনে মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, ‘আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠিত হয়েছে ১৯৪৯ সালের ২৩ জুন। এটা মির্জা ফখরুল সাহেব যদি না জেনে থাকেন, দয়া করে ইতিহাস পড়ে নেওয়ার জন্য আপনাদের মাধ্যমে বিএনপির নেতা-কর্মীদের প্রতি অনুরোধ জানাব।’মির্জা ফখরুল সংবাদ সম্মেলনে বলেছিলেন, ‘বিএনপি অবৈধ হলে আওয়ামী লীগও অবৈধ। কারণ বাকশাল গঠনের পর আওয়ামী লীগ ছিল না। জিয়াউর রহমানের সময় বিএনপি রাজনৈতিক দল হিসেবে নিবন্ধন নিয়েছিল, তখন আওয়ামী লীগও নিবন্ধন নেয়।’বিএনপিকে অবৈধ দল ঘোষণার বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে হানিফ বলেন, সেটা সময়ই বলে দেবে। এই দেশের জনগণ সকল ক্ষমতার মালিক। জনগণ যদি একটি ‘অবৈধ’ দলকে অবৈধ হিসেবেই দেখতে চায়, ঘোষণা করতে চায়; জনগণের সেই ইচ্ছার প্রতিফলন হয়তো পরবর্তীতে কেউ করবে।সরকারের দুর্নীতির অভিযোগের বিষয়ে মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় থাকতে হাওয়া ভবন সৃষ্টি করে খালেদা জিয়া এবং তার পুত্র দুর্নীতি ও কমিশন বাণিজ্য করে এ দেশ থেকে হাজার হাজার কোটি টাকা পাচার করেন। ন্যূনতম লজ্জাবোধ থাকলে তারা সরকারের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ করতেন না।মির্জা ফখরুলকে উদ্দেশ করে হানিফ বলেন, ‘লুটপাটের টাকা আছে বলেই বিএনপির শীর্ষ নেতা তারেক রহমান লন্ডনে আছেন। গত প্রায় সাতটি বছর বিলাসী জীবনযাপন করছেন, দামি বিলাসবহুল গাড়ি কিনেছেন। যে ড্রাইভার রেখেছেন তাঁর বেতনই বাংলাদেশি টাকায় দেড় থেকে দুই লাখ টাকা। এই যে বিলাসী জীবনযাপন করছেন, এই টাকা কোথা থেকে পাচ্ছেন। আপনার নেতা তারেক রহমানের তো কোনো আয়ের উৎস নেই। তাহলে সাতটা বছর এভাবে বিলাসী জীবনযাপন করছেন কীভাবে?’মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বিএনপিকে সন্ত্রাসী দল হিসেবে তালিকাভুক্তির আহ্বান এসেছে দাবি করে হানিফ বলেন, ‘মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বিএনপিকে সন্ত্রাসী দল হিসেবে তালিকাভুক্তির আহ্বান এসেছে। বিএনপির সাম্প্রতিক কর্মকাণ্ডের ওপর বিচার-বিশ্লেষণ করে তাদের একটি সন্ত্রাসী দল হিসেবে চিহ্নিত করার আবেদন উঠেছে। আজকে এই দেশবাসী কি বিএনপিকে ক্ষমতায় বসাবে দেশকে সন্ত্রাসের স্বর্গরাজ্য বানানোর জন্য?’গণমাধ্যম স্বাধীন নয়—মির্জা ফখরুলের এই বক্তব্যের সমালোচনা করেন হানিফ। তিনি বলেন, ‘বর্তমান বাংলাদেশের গণমাধ্যম স্বাধীন। এ ব্যাপারে গণমাধ্যমের কোনো দ্বিমত নেই। দ্বিমত আছে মির্জা ফখরুলদের। কারণ ওঁনাদের কিছু অ্যাজেন্ডা বাস্তবায়নের জন্য, দেশবিরোধী ষড়যন্ত্র বাস্তবায়নের জন্য—ওঁনাদের সেই তথাকথিত নেতা মাহমুদুর রহমানের মতো সাংবাদিক নামধারী ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার কারণে তাঁদের মাথাব্যথা হয়ে দাঁড়িয়েছে।’‘বিএনপিতে যত জন মুক্তিযোদ্ধা রয়েছেন, আওয়ামী লীগে আছে কি না, তা আমার জানা নেই’—মির্জা ফখরুলের এমন মন্তব্যের বিষয়ে হানিফ বলেন, ‘জাতি জানে কারা মুক্তিযুদ্ধের দল আর কারা রাজাকারদের সমর্থনকারী পাকিস্তানিদের দল। জনগণের কাছে এটা পরিষ্কার হয়ে গেছে কারা মুক্তিযুদ্ধে শহীদ ও বুদ্ধিজীবীদের কটাক্ষ করে। বিএনপি যে ইতিমধ্যে পাকিস্তানের মুখপাত্র হিসেবে এ দেশে রাজাকারদের দোসর হিসেবে উপবিষ্ট হয়েছে, সেটা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। মির্জা ফখরুল এখন মিনমিনে সুরে নিজেদের মুক্তিযোদ্ধাদের দল হিসেবে দাবি করছেন।’সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমেদ হোসেন, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, কেন্দ্রীয় সদস্য এস এম কামাল হোসেন, সুজিত রায় নন্দী প্রমুখ।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত