শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

৩৭টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় চতুর্থ দিনেও অচল



15নিউজ ডেস্ক ::
পদমর্যাদা ও বেতন বৈষম্যের প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার চতুর্থ দিনের মতো কর্মবিরতি পালন করছেন দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা। সোমবার সকাল থেকে পূর্বঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী অনির্দিষ্টকালের এ কর্মবিরতি পালন করছেন তারা।বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের ব্যানারে অষ্টম জাতীয় বেতন কাঠামোতে অসঙ্গতি দূর করার দাবিতে শুরু হওয়া এ কর্মসূচিতে যোগ দিয়েছেন দেশের ৩৭টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা। ফলে বন্ধ আছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর সব পরীক্ষা। একই সাথে বন্ধ আছে নিয়মিত ক্লাস ও সান্ধ্যকালীন কোর্সের কার্যক্রম।এর আগে অষ্টম জাতীয় বেতন কাঠামোতে অসঙ্গতি দূর করাসহ চার দফা দাবিতে সোমবার বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি এ কর্মবিরতির ডাক দেয়। দেশের সকল পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা এই কর্মবিরতিতে অংশ নিয়েছেন। দাবি আদায়ের লক্ষ্যে গত আট মাস ধরে নানাভাবে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন তারা।
এদিকে কর্মবিরতির দ্বিতীয় দিন মঙ্গলবার বিকেলে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের সঙ্গে শিক্ষক নেতাদের বৈঠক হলেও কর্মবিরতি প্রত্যাহার করেননি শিক্ষকরা। বৈঠক শেষে শিক্ষক নেতারা জানিয়েছেন, শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে আন্তরিকতাপূর্ণ আলোচনা হয়েছে। কিন্তু সমস্যার সমাধান হয়নি। তাই তারা তাদের কর্মবিরতি অব্যাহত রাখবেন।শিক্ষামন্ত্রীও জানিয়েছেন, শিক্ষকদের কর্মবিরতির বিষয় নিয়ে সরকার ও শিক্ষকদের মধ্যে আন্তরিক আলোচনা চলছে। সবার জন্য সম্মানজনক হবে এমন একটি সমাধানের পথ খোঁজা হচ্ছে।শিক্ষকরা জানিয়েছেন, শিক্ষার্থীদের পড়াশোনায় বিঘ্ন ঘটাতে চান না তারা। তারা ক্লাসে ফিরতে চান। তাই সরকার তাদের যৌক্তিক দাবির প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন- তারা এমনটাই আশা করেন। শিক্ষকরা বলছেন, সরকার দাবি মেনে নিলেই তারা ক্লাসে ফিরে যাবেন।এর আগে গত ২ জানুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩৭টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকের পর বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশন নানা ধরনের প্রতিবাদ কর্মসুচি ঘোষণা করে। ৩ জানুয়ারি শিক্ষকরা কালো ব্যাজ ধারণ করেন। ৭ জানুয়ারি প্রতিটি ক্যাম্পাসে সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত অবস্থান ধর্মঘট পালন করেন। এরপর ১১ জানুয়ারি থেকে লাগাতার কর্মবিরতিতে যান শিক্ষকরা।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত