বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

নিজামীর ফাঁসি কার্যকর



wrrrr15নিউজ ডেস্ক ::
একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে মানবতা বিরোধী অপরাধের দায়ে জামায়াতের আমির মতিউর রহমান নিজামীর আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের দেয়া ফাঁসির রায় কার্যকর করা হয়েছে।

মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতের আমীর মতিউর রহামান নিজামীর রায় কার্যকরের পর কেন্দ্রীয় কারাগারের মূল ফটকের সামনে সাংবাদিকদের কাছে সিনিয়র জেল সুপার জাহাঙ্গীর কবির ১২টা ১০ মিনিটে ফাঁসি কার্যকর করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন।

এর আগে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের তোড়জোড়ের মধ্যে জামায়াতে ইসলামীর আমির মতিউর রহমান নিজামীর সঙ্গে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে শেষ দেখা করতে মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টা ৫০ মিনিটে তিনটি গাড়িতে নিজামীর পরিবারের সদস্যরা কারা ফটকে পৌঁছান। প্রায় দেড় ঘণ্টা কারাগারের ভেতরে অবস্থান করার পর ৯টা ২৫ মিনিটের দিকে কারাগার থেকে বেরিয়ে চলে যান তারা।

স্বাধীনতার ৪৪ বছর পর এটি হচ্ছে মানবতাবিরোধী অপরাধ মামলার পঞ্চম ফাঁসি কার্যকর।
এ দন্ড কার্যকরের সময় অতিরিক্ত কারা মহাপরিদর্শক কর্নেল মো. ইকবাল, কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার জাহাঙ্গীর কবির, জেলার নেসার আলমসহ বেশ কয়েকজন কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া ঢাকার জেলা প্রশাসক মো. সালাউদ্দিন, ঢাকার সিভিল সার্জন ডা. আবদুল মালেক মৃধা, কারা হাসপাতালের চিকিৎসক, জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি, পুলিশ কমিশনারের প্রতিনিধিসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে একাধিক লাশবাহী এ্যাম্বুলেন্সও কারাগারে রাখা হয়।

কারা সূত্র জানায়, কারাগারে তাকে শেষ গোসল করানো হয়। নিজামীকে তওবা পড়ান কারাগার পুকুরপাড় সংলগ্ন মসজিদের ইমাম হাফেজ মাওলানা মনির হোসেন খান। আগের ৪ যুদ্ধাপরাধীদের রায় কার্যকরের আগেও তাদের তওবা পড়িয়েছিলেন মাওলানা মনির।
দন্ড কার্যকরকে কেন্দ্র করে কেন্দ্রীয় কারাগার ও এর আশপাশের এলাকায় কয়েক স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। এ সময় বিভিন্ন আইন-শৃংখলা বাহিনী এবং গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা দায়িত্ব পালন করেন। কারাগারের প্রবেশ পথে সাধারণের চলাচলে কঠোর নিয়ন্ত্রণা আরোপ করা হয়।

নিজামীর সঙ্গে দেখা করতে তার পরিবারের মোট ২৪ জন সদস্য কারাগারের এসেছিলেন। নিজামীর সঙ্গে এটিই তার পরিবারের শেষ সাক্ষাৎ বলে মনে করা হচ্ছে। তবে, কারাগারের পৌঁছানোর আগে নিজামীর ছেলে ব্যারিস্টার নাজিব মোমেন জানিয়েছিলেন, দুদিন আগে পরিবারের পক্ষ থেকে তার সঙ্গে দেখা করার জন্য আবেদন করা হয়েছিল। কারা কর্তৃপক্ষ তখন কোনো সাড়া দিয়েছিল না। তবে আজ বিকেলে কারা কর্তৃপক্ষ যোগাযোগ করে।

এর আগে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে জামায়াত নেতা মতিউর রহমান নিজামীর রিভিউয়ের পূর্ণাঙ্গ রায় সোমবার দুপুরে ১৫৩ পৃষ্ঠার পূর্ণাঙ্গ রায় সুপ্রিমকোর্টের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়।

গত ১৫ মার্চ নিজামীর মৃত্যুদণ্ডাদেশ বহাল রেখে আপিল বিভাগের দেওয়া রায়ের পূর্ণাঙ্গ অনুলিপি প্রকাশের পর মৃত্যু পরোয়ানা জারি করেছিলেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। বিচারপতি মোহাম্মদ আনোয়ার উল হকের নেতৃত্বাধীন ট্রাইব্যুনালের তিন বিচারক রাত ৯টার দিকে আসামির মৃত্যু পরোয়ানায় স্বাক্ষরই করেন।

গত বৃহস্পতিবার (৫ মে) প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার নেতৃত্বাধীন চার সদস্যের আপিল বেঞ্চ আপিলের মৃত্যুদণ্ডের রায় বহাল রেখে রিভিউয়ের আদেশ দেন।
বেঞ্চের অন্য তিন সদস্য হলেন, বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা, বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ও বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত