মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

অনিবন্ধিত সিমে কল আসবে ৪ দিন



2নিউজ ডেস্ক : সিম বায়োমেট্রিক নিবন্ধনের সর্বশেষ তারিখ ছিলো গতকাল মঙ্গলবার (৩১ মে) রাত ১২টা পর্যন্ত। এর মধ্যেও যারা নিবন্ধন করেনি। তাদের সিম রাত থেকেই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তবে সে সব সিমে কল আসবে, যাবে না। আর এ সেবাটি থাকবে আগামী আরো ৩/৪ দিন।
মোবাইল অপারেটরদের সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। এক্ষেত্রে বাংলালিংক ও রবির অনিবন্ধিত সিমে ইনকামিং চালু থাকবে ৩ দিন আর গ্রামীনফোনের থাকবে ৪ দিন।
এদিকে অ্যাসোসিয়েশন অব মোবাইল টেলিকম অপারেটরস অব বাংলাদেশে (অ্যামটব) বিটিআরসিকে চিঠি দিয়ে অনিবন্ধিত সিম বন্ধ না করার অনুরোধ জানিয়েছে।
বিটিআরসির নিয়ম অনুযায়ী, বন্ধের ১৫ মাস এবং পরবর্তীতে আরও তিন মাসের মধ্যে নোটিশ দিয়ে ক্রেতা সাড়া না দিলে সিমের মালিকানা বিক্রি করতে পারবে অপারেটরগুলো। এক্ষেত্রেও সে নিয়ম প্রযোজ্য হবে। অর্থাৎ ১ জুন থেকে অনিবন্ধিত সিম ব্যবহার করতে চাইলে নির্ধারিত ১৫০ টাকা দিয়ে পুনঃনিবন্ধন করতে হবে।
তবে গত রোববার টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম জানান, বন্ধ হয়ে যাওয়া সিমগুলো নতুন করে কিনতে পারবেন দুই মাসের মধ্যে। আর প্রবাসী বাংলাদেশিরা এ সুযোগ পাবেন ১৮ মাস পর্যন্ত। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে গ্রাহকরা যদি তাদের সিম নম্বর কিনে না নেন তবে মোবাইল অপারেটররা অনিবন্ধিত সিম বিক্রি করে দিতে পারবে।
বিটিআরসির সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, গ্রাহকের হাতে থাকা প্রায় ১৩ কোটি ২০ লাখ সিমের মধ্যে ১০ কোটি ৪৮ লাখ ৬৫ হাজার ৩০৬ সিম বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে নিবন্ধিত হয়েছে।
এর মধ্যে গ্রামীণফোনের ৪ কোটি ৯০ লাখ ১৫ হাজার ৮৯৬টি, বাংলালিংক দুই কোটি ৬৬ লাখ ৪৬ হাজার ৪৭৬, রবি দুই কোটি ১০ লাখ চার হাজার ৩২২, এয়ারটেল ৭৬ লাখ ৮০ হাজার ৬৫১, রাষ্ট্রায়ত্ত অপারেটর টেলিটকের ১২ লাখ ৭৪ হাজার ২৫২টি এবং সিটিসেলের এক লাখ ৪৩ হাজার ৭০৯টি সিম নিবন্ধিত হয়েছে।
যেসব সিম বন্ধ বন্ধ হয়ে যাবে ৫৪০ দিনের মধ্যে বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন করে পুনরায় সিম চালু করা যাবে। বন্ধ হয়ে যাওয়া সিম পুনরায় পেতে প্রমাণ সাপেক্ষে কিনতে হবে হবে নিজের সিমটি।
৪৫০ দিন পার হওয়ার পর বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে সংযোগ বিক্রির ঘোষণা দিতে পারবে অপারেটর। এরপর ভেরিফিকেশন করে সংযোগ পেতে ৯০ দিন সময় পাবেন গ্রাহক।
তবে সিম পুনর্নিবন্ধন না হলে নির্ধারিত সময়ের পর অন্য গ্রাহকের কাছে সিমটি বিক্রি করা যাবে। আর যারা জাতীয় পরিচয়পত্রের পরিবর্তে পাসপোর্ট/ড্রাইভিং লাইসেন্স/জন্ম নিবন্ধন সনদ ব্যবহার করে নিবন্ধন করেছেন সেই নিবন্ধনের মেয়াদ ছয় মাস।
অবশ্য মঙ্গলবার রাত ১২টা নাগাদ কতটি সিম বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে নিবন্ধিত হয়েছে তার সঠিক পরিসংখ্যান দিতে পারেনি বিটিআরসি।
বিটিআরসির একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানান, মঙ্গলবার ৪০ লাখের মত সিম বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে নিবন্ধিত হতে পারে। এ হিসাবে সিম নিবন্ধন পৌনে ১১ কোটির বেশি দাঁড়াতে পারে।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত