বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

‘পিস টিভি’ বন্ধ নিয়ে বিভক্ত ইসলামী চিন্তাবিদ ও দলগুলো



35নিউজ ডেস্ক: বাংলাদেশের সরকার রোববার পিস টিভির সম্প্রচার বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়। আর সোমবার তথ্য মন্ত্রণালয় পিস টিভির ডাউনলিংক অনুমতি বাতিল করে আদেশ জারি করে। বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশের ইসলামী চিন্তাবিদ ও দলগুলোর মধ্যে দেখা যাচ্ছে ভিন্ন ভিন্ন মত ও ভাবনা।
বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের মহাসচিব ড. আহমেদ আব্দুল কাদের বলছেন, যে যুক্তি দেখিয়ে সরকার পিস টিভি বন্ধ করছে, সে একই যুক্তিতে ভারতের বাংলা চ্যানেল স্টার জলসা বন্ধ করে দেয়া উচিত।
মি. কাদের বলছেন, পিস টিভি দেখে যদি কারো জঙ্গিবাদে উৎসাহ পাবার সম্ভাবনা তৈরি হয়, তাহলে সরকারের উচিত বিশ্লেষণ করে দেখা অন্য ভারতীয় চ্যানেলগুলোতে কি দেখানো হচ্ছে।
তিনি মনে করেন, স্টার জলসাসহ কয়েকটি ভারতীয় চ্যানেলে দেখানো সিরিয়ালগুলো দেখে বাংলাদেশে পারিবারিক কোন্দল বাড়ছে।
দুটি বিষয়কে কিভাবে তিনি এক করে দেখছেন, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, দুটি বিষয়ই সমাজের জন্য একই রকম ক্ষতিকর এবং উদ্বেগজনক।
এদিকে, দেশে জঙ্গিবাদ প্রতিরোধের লক্ষ্যে টেলিভিশন চ্যানেল বন্ধ করা ভালো কোন উপায় নয় বলে মত দিয়েছেন, কিশোরগঞ্জের প্রখ্যাত সোলাকিয়ার ইমাম মাওলানা ফরিদউদ্দিন মাসুদ।
কারণ নিষিদ্ধ করার মাধ্যমে কোন কিছুর মূল উৎপাটন সম্ভব নয়। তবে, জঙ্গিবাদ প্রতিরোধের প্রাথমিক পদক্ষেপ হিসেবে যদি সরকার এই উদ্যোগ নেয়, তাহলে সেটিকে সমর্থন করবেন তিনি।
তবে, মাওলানা মাসুদ জানিয়েছেন, পিস টিভিতে জাকির নাইক ইসলামের ব্যাখ্যা দেন সালাফি ব্যাখ্যা অনুসারে।
ইসলামে সালাফি ব্যাখ্যার ধরণটি কিছুটা উগ্র, এবং আইএস এর শীর্ষ নেতা আবু বকর আল-বাগদাদী এবং আলকায়েদার ওসামা বিন লাদেন উভয়েই সালাফি মতাদর্শে দীক্ষিত ছিলেন বলে তিনি জানিয়েছেন।
ফলে এই দুই এর সাদৃশ্যের কারণে অনেকেই সন্দেহ করে বিশেষ ঐ চ্যানেলটির মাধ্যমে বিশেষ করে তরুণরা জিহাদে উৎসাহিত হতে পারে।
সোমবার এক বিবৃতিতে জাকির নাইক বলেছেন, তিনি কোন দিন সন্ত্রাসকে সমর্থন করেননি। কেউ তাকে অনুসরণ করলে সেক্ষেত্রে তিনি তার সম্পৃক্ততা নাকচ করে দেন। খবর-বিবিসি বাংলা।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত