মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

কৃষি ও শিপবিল্ডিং খাতে নরওয়ের সহায়তা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী



fc131f5df25e55465d8e539a6722d979-57c6c869655f0নিউজ ডেস্ক::প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও নরওয়ের বিদায়ী রাষ্ট্রদূত মেরেটে লুনডেমোরপারস্পরিক স্বার্থে আরও উন্নয়ন এবং বাংলাদেশের কৃষি ও শিপবিল্ডিং খাতের বিকাশে নরওয়ের সহায়তা চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার সকালে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তার কার্যালয়ে নরওয়ের বিদায়ী রাষ্ট্রদূত মেরেটে লুনডেমোর সাক্ষাৎকালে তিনি এই সহযোগিতা চান। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফকালে এ তথ্য জানান।
বৈঠকে বাংলাদেশের শিপবিল্ডিং এবং শিপ রিসাইক্লিং’র অগ্রগতি নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব জানান। তিনি জানান, ‘প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের ফিসারিজ সেক্টরের উন্নয়ন, ব্রিডিং ফিঙ্গারলিং, ফিশারিজ ম্যানেজমেন্টে এবং বাংলাদেশের উপকূল অঞ্চলে মেরিন মৎস্য প্রকল্পে যৌথ উদ্যোগে প্রকল্প গ্রহণে নরওয়ের সহায়তা চেয়েছেন।’

বৈঠকে শেখ হাসিনা বলেন, ‘সরকার দেশের দক্ষিণ অঞ্চলে একটি নতুন শিপইয়ার্ড স্থাপন করেছে। নরওয়ে সেখানে তাদের একটি নিজস্ব শিপইয়ার্ড নির্মাণ করতে পারে। তারা চাইলে এর জন্য আমরা তাদের জমি দেব।’

বৈঠকে নরওয়ের রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশে শিপইয়ার্ড শিল্পের অগ্রগতির প্রশংসা করে বলেন, ‘চট্টগ্রামে নরওয়ের দুটি জাহাজ নির্মাণ করা হয়েছে। আরও চারটি জাহাজ নির্মাণের ব্যাপারে মধ্যস্থতা চলছে।’

নরওয়ের রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশে আরও বিনিয়োগের ব্যাপারে বিশেষ করে স্বাস্থ্য, টেলিকম এবং শিপবিল্ডিং সেক্টরে তার দেশের আগ্রহের কথা জানান। এ সময় তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে আমার অবস্থানকালে উল্লেখযোগ্য উন্নয়ন বিশেষ করে দারিদ্র্য বিমোচনে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে। বাংলাদেশের জনগণের অবস্থার উন্নয়ন হয়েছে।’

বাংলাদেশে সাম্প্রতিক সন্ত্রাসী হামলার পর কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে মেরেট বলেন, ‘আমার দেশে পাঁচ বছর আগে এমন এক সন্ত্রাসী হামলায় প্রায় ৭৭ জন লোক প্রাণ হারায়। তাদের মধ্যে অধিকাংশই ছিল শিশু। নরওয়ে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সব সময় বাংলাদেশের পাশে থাকবে।’

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব সুরাইয়া বেগম উপস্থিত ছিলেন।সূত্র: বাসস

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত