বুধবার, ৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ২১ মাঘ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বড়লেখায় প্রবাসীকে হত্যা চেষ্টা মামলার ২ আসামী জেলে



unnamed-3-24

মৌলভীবাজারের বড়লেখায় চাঞ্চল্যকর কাতার প্রবাসী সহিদ মিয়াকে গলা কেটে হত্যা চেষ্টা মামলার পলাতক দুই আসামীকে সোমবার কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। প্রায় আড়াই মাস পালিয়ে থাকার পর প্রধান আসামী গিয়াস মিয়া ও ৪ নম্বর আসামী মোহাম্মদ আলী রিপন বড়লেখা সিনিয়র জুডিশিয়েল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির হয়ে জামিনের প্রার্থনা করেন। আদালত জামিন না-মঞ্জুর করে তাদরেকে মৌলভীবাজার জেলা কারাগারে প্রেরণের আদেশ দেন। গুরুতর আহত কাতার প্রবাসী সহিদ মিয়ার অবস্থার অবনিত ঘটলেও চিকিৎসকের পরামর্শে তিনি শনিবার সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেদ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।
আদালত ও মামলার এজাহার সুত্রে জানা গেছে, ৮ আগষ্ট সন্ধার পর কাতার প্রবাসী উপজেলার সুজানগর ইউনিয়নের ভোলারকান্দি গ্রামের মৃত রইব আলীর ছেলে সহিদ মিয়া স্থানীয় আজিমগঞ্জ বাজার থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। গ্রামের প্রাইমারী স্কুলের সম্মুখে যাওয়ার পর পূর্ব পরিকল্পিতভাবে ওঁৎ পেতে থাকা গিয়াস মিয়া, আব্দুল মালিক, ইয়াছিন মিয়া, মোহাম্মদ আলী রিপন, আব্দুল হাসিম, আব্দুল আজিজ, সালেক মিয়া, বিলাল মিয়া, সেলিম, হেলাল, আব্দুস সামাদ প্রমূখ দা, ক্ষুর ও কিরিচ দিয়ে অতর্কিত হামলা চালিয়ে তাকে গুরুতর আহত করে। মাটিতে লুটিয়ে পড়ার পর প্রতিপক্ষের লোকজন প্রবাসীর বাম কানের নিচ ও শ্বাসনালী কেটে মৃত্যু নিশ্চিত মনে করে পালিয়ে যায়। পথচারীরা মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। প্রায় আড়াই মাস চিকিৎসার পর চিকিৎসকের পরামর্শে গত শনিবার আহত সহিদ মিয়াকে সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেদ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।
বড়লেখা আদালতের এপিপি অ্যাডভোকেট গোপাল চন্দ দত্ত জানান, আসামীদের বিরুদ্ধে নন বেইলেবুল সেকশন ৩০৭ ও ৩২৬ ধারার অপরাধ থাকায় বিজ্ঞ আদালত জামিন না-মঞ্জুর করে তাদেরকে কারাগারে প্রেরণ করেছেন।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত