বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

কুলাউড়ায় সাংবাদিকদের সাথে জিশান আরা বেগম ডলির মতবিনিময়



unnamed-5মৌলভীবাজার জেলা পরিষদ নির্বাচনে সংরক্ষিত নারী আসনের ২নং ওয়ার্ড (কুলাউড়ার ১০টি ও জুড়ীর ৪ টি ইউনিয়ন) এর সদস্য প্রার্থী জিশান আরা বেগম ডলি সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় করেছেন। ৩১ অক্টোবর সোমবার সন্ধ্যায় তাঁর মাতা কুলাউড়া উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান নারীনেত্রী নেহার বেগমের বাসায় তিনি সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় করেন। মত বিনিময়কালে তিনি বলেন, তিনি একটি রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান। তাঁর মাতা নারীনেত্রী নেহার বেগম কুলাউড়া উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হিসাবে ৬৭ হাজার ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি নিজেও সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সচেতন পরিবারের সদস্য হিসাবে তিনি কুলাউড়ার উন্নয়নে নিজেকে সম্পৃক্ত করে দূর্ণীতিমূূক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠায় কাজ করার জন্য জেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন। তিনি দলমত নির্বিশেষে সকলের সহযোগীতা কামনা করেছেন।
মতবিনিময়কালে জিশান আরা বেগম ডলি বলেন, তিনি ছাত্রজীবনে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সদস্য হিসাবে জড়িত ছিলেন। পরবর্তীতে তিনি সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে জড়িত হয়ে পড়েন। তিনি বাংলাদেশ বেতারের একজন নিয়মিত সংঙ্গীত শিল্পী হিসাবে গান পরিবেশন করে থাকেন। এছাড়া কুলাউড়ায় উদিচি শিল্পী গোষ্টী ও টাউন ক্লাবের সাথে তিনি ছিলেন ওতপ্রোতভাবে জড়িত। উচ্চতর ডিগ্রী অর্জনকারী জিশান আরা বেগম ডলি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে চাইল্ড ডেভোলাপমেন্ট এন্ড ফ্যামেলী রিলেশন এর ওপরে বিএসসি (অনার্স) ও মাষ্টার্স ডিগ্রী অর্জন করেন। বর্তমানে তিনি এমফিল ডিগ্রী অধ্যয়ন করার ইচ্ছা পোষন করেছেন। জিশান আরা বেগম ডলির পিতা আমেরিকা প্রবাসী মরহুম আব্দুল জলিল আওয়ামী রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন এবং মাতা কুলাউড়া উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও প্যানেল চেয়ারম্যান নেহার বেগম এবং ছোট ভাই কুলাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শিশু রোগ বিশেষজ্ঞ ডাক্তার আবু বকর মোঃ নাসের রাশু। ব্যক্তিগত জীবনে ডলি বিবাহিত। তাঁর স্বামী আলমগীর আলম শাহান জাসদ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ও কাদিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দিতা করেছিলেন।
তিনি এক পুত্র ও ২ কন্যা সন্তানের জননী। জিশান আরা বেগম ডলি আগামী ডিসেম্বরে অনুষ্টিতব্য জেলা পরিষদ নির্বাচনে কুলাউড়া উপজেলার ভুকশিমইল, ভাটেরা, বরমচাল, জয়চন্ডি, পৌরসভা, কুলাউড়া সদর, রাউৎগাও, পৃথিমপাশা, কর্মধা, কাদিপুরসহ ১০টি ও জুড়ীর ফুলতলা, সাগরনাল, গোয়ালবাড়ী ও জায়ফরনগর ইউনিয়নের সকল চেয়ারম্যান, ইউপি সদস্য/সদস্যা, কুলাউড়া ও জুড়ী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ভাইস চেয়ারম্যান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান, পৌরসভার মেয়র ও কাউন্সিলরবৃন্দের সার্বিক সহযোগীতা কামনা করেছেন।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত