শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

‘বাড়ি যেতে ব্যাকুল খাদিজা’



5424নিউজ ডেস্ক: ছাত্রলীগ নেতা বদরুল আলমের চাপাতির আঘাতে গুরুতর অবস্থায় রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি হন সিলেটের কলেজছাত্রী খাদিজা বেগম নার্গিস। বিষয়টি সোরাদেশে আলোচিত। ডাক্তাররা খাদিজাকে বাঁচানোর ব্যাপারে শঙ্কায় ছিলেন। স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন খাদিজার সর্বশেষ অবস্থা এখন অনেকটাই ভালো। হাসপাতালে এরকম হাসিখুশি দেখা গেছে খাদিজাকে। বেশ প্রাণবন্ত ও স্বাভাবিকভাবে কথাও বলেছেন।

খাদিজা এখন বাড়ি যেতে ব্যাকুল হয়ে আছেন। খাদিজা জানান, রোববার (২০ তারিখ) ভাই আসলে তিনি বাড়ি যাবেন। ভাই তাকে বলেছে এসে বাড়ি নিয়ে যাবে। এ সময় পাশে ছিলেন তার বাবা-মা।

খাদিজার ডান হাতে কনুইয়ের নিচ থেকে ব্যান্ডেজ করা আছে। এর মধ্য থেকে বের করা আঙুল দিয়ে তিনি ধরতে পারছেন। বাঁ হাতেও ব্যান্ডেজ।

খাদিজা জানান, এখন তিনি নিজে ফোন দিতে এবং রিসিভ করতে পারেন। ফোন নিজে হাতে ধরে কথা বলেন। তবে তা বেশি সময় করলে হাতে ব্যথা হয়ে যায়।

খাদিজার বাবা মাসুক মিয়া বলেন, মেয়ের দুর্ঘটনা শুনে দেশ-বিদেশ থেকে স্বজন ও পরিচিতজনদের অনেকে ফোন করে কান্নাকাটি করেছেন। দোয়া করেছেন। কেউ কেউ ওমরাহ করেছেন তার জন্য। এখন তাদের সবাইকে ফোন করে মেয়ের সঙ্গে কথা বলিয়ে দিই। তারা এতে খুশি হন। বিদেশ থেকে কেউ ফোন দিলে খাদিজা তাদের সঙ্গে কথা বলে। সবার কাছে দোয়া চায়।’

প্রসঙ্গত, গত ৩ অক্টোবর সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রী খাদিজা পরীক্ষা দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে এমসি কলেজ ক্যাম্পাসে তার ওপর হামলা হয়।

ছাত্রলীগ নেতা এবং শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বহিষ্কৃত ছাত্র বদরুল আলম তাকে উপর্যুপরি কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। খাদিজাকে প্রথমে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং পরে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে এনে ভর্তি করা হয়।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত