সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

কমলগঞ্জে পল্লী বিদ্যুতের গ্রাহকরা ভোগান্তিতে



download-2নিউজ ডেস্ক:: মৌলভীবাজার পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির অধীনস্থ কমলগঞ্জে উপজেলার বিদ্যুৎ গ্রাহকরা চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। গ্রাহকদের পরিশোধিত বিলের সাথেও বকেয়া মাসের বিদ্যুৎ বিল সংযোগ করা হচ্ছে। ফলে কর্মব্যস্ত গ্রাহকরা প্রতিনিয়ত বিদ্যুৎ অফিসে ধর্না দিচ্ছেন। গ্রাহকদের অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার বিভিন্ন এলাকার গ্রাহকদের বকেয়া বিল পরিশোধ রয়েছে এমন গ্রাহকেরও পরিশোধিত বিলের সাথে বকেয়া মাসের বিল সংযুক্ত করা হয়েছে। তাছাড়া বকেয়া মাসের বিল সামান্য হলেও বকেয়া মাসের বিল সংযুক্ত থাকায় প্রতিটি গ্রাহকদের হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে। ব্যাংক বিদ্যুৎ বিল পরিশোধের প্রমাণপত্র দেখালেও চলতি মাসের বিল পরিশোধ সম্ভব হচ্ছে না। ব্যাংক কর্তৃপক্ষ গ্রাহকদের ফেরত পাঠাচ্ছে। ফলে বিদ্যুৎ বিলের কপি সংযোজনের জন্য দুর্গম এলাকা থেকেও কাজকর্ম রেখে উপজেলা পল্লী বিদ্যুৎ অফিসে গিয়ে ধর্না দিতে দেখা গেছে। শত শত গ্রাহকের ভিড় থাকায় ঘন্টার পর ঘন্টা গ্রাহকদের অফিসে ভিড় করতে হচ্ছে। ফলে অফিস কর্মচারীদের সাথেও প্রতিয়িনত বাক-বিতন্ডার সৃষ্টি হচ্ছে। কর্মে ব্যস্ত কেউ কেউ পরিশোধিত থাকার পরও অফিসে যেতে না পারায় ব্যাংকে পুনরায় বিল পরিশোধ করছেন।
শমশেরনগর বাজারের ব্যবসায়ী শাহজাহান আহমদ, রফিক মিয়া বলেন, তিনি বিল পরিশোধ করার পর প্রস্তুতকৃত বিলের সাথে বকেয়া বিল সংযুক্ত করা হয়েছে। শ্রীসূর্য্য এলাকার গ্রাহক জয়নাল খান বলেন, বকেয়া মাসের বিল পরিশোধের পরও নতুন বিলের সাথে বকেয়া মাসের বিল সংযুক্ত করা হয়েছে। ফলে অফিসে গিয়ে ভোগান্তি পেয়ে তা সংশোধন করতে হয়েছে। এভাবে প্রতিদিন শত শত গ্রাহক ব্যাংক ও বিদ্যুৎ অফিসে গিয়ে হয়রানির শিকার হচ্ছেন। এ ব্যাপারে মৌলভীবাজার পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কমলগঞ্জ জোনাল অফিসের ডিজিএম প্রকৌশলী মোবারক হোসেন বকেয়া বিল সংযুক্তির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, সেন্ট্রাল অফিস থেকে নির্দেশনা আসায় আমাদের এভাবে বিল তৈরী করতে হচ্ছে। এটি অব্যাহত থাকবে। তবে ব্যাংকে বিল পরিশোধ করলে অফিসে আসতে কয়েকদিন সময় লেগে যায়। সে কারণে দু’একটি বিলে কিছু ত্র“টি বিচ্যুতি হতে পারে।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত