রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

নির্বাচনে মৌলভীবাজার থেকে রাজস্ব আয় ৯ লক্ষ ১৮ হাজার ৫০০ টাকা



downloadবিশেষ প্রতিনিধি::: আসন্ন জেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোটার তালিকা সংযুক্ত সিডি বিক্রি করে ৬ জন চেয়ারম্যান, ৯২ জন সাধারণ সদস্য ও ২৩ জন সংরক্ষিত মহিলা প্রার্থীর কাছ থেকে মৌলভীবাজার জেলায় সরকারের রাজস্ব বাবত আয় হয়েছে ৯ লক্ষ ১৮ হাজার ৫০০ টাকা। নির্বাচন অফিস সূত্রে মতে, নির্বাচনে মনোনয়ন পত্র সংগ্রহের সময় চেয়ারম্যানদের ৫৬ হাজার, সাধারণ সদস্য এলাকা বেধে ইউনিয়ন প্রতি ৫”শত টাকা এবং পৌরসভার ওয়ার্ড প্রতি ৫”শত টাকা হারে ও সংরক্ষিত মহিলা প্রার্থীদের ক্ষেত্রেও পুরুষ সদস্যদের ন্যায় একই হারে ভোটার তালিকা সংযুক্ত সিডি ক্রয় করতে হয়েছে। নির্বাচনে মনোনয়ন জমাদানকারী ৬ জন চেয়ারম্যান, ৯২ জন সাধারণ সদস্য ও ২৩ জন সংরক্ষিত মহিলা সদস্যের কাছ থেকে সরকারের রাজস্ব বাবত আয় হয়েছে ৯ লক্ষ ১৮ হাজার ৫”শত টাকা।
জানা যায়, ১নং ওয়ার্ডে ৪টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভা মিলে ৫ জন প্রার্থীর কাছ থেকে জন প্রতি ৬হাজার ৫ শত টাকা হারে আয় হয়েছে ৩২ হাজার ৫”শত টাকা। ২নং ওয়ার্ডে ৪টি ইউনিয়নে ৬ জন প্রার্থীর কাছ থেকে জন প্রতি ২ হাজার হরে আয় হয়েছে ১২ হাজার টাকা। ৩নং ওয়ার্ডে ৪টি ইউনিয়নে ৫ জন প্রার্থীর কাছ থেকে জন প্রতি ২ হাজার হারে আয় হয়েছে ১০ হাজার টাকা। ১, ২, ৩ নং সংরক্ষিত মহিলা সদস্য ওয়ার্ডে জন প্রতি ১০ হাজার ৫শত টাকা হারে ২ জন প্রার্থীর কাছ থেকে আয় হয়েছে ২১ হাজার টাকা। ৪নং ওয়ার্ডে ৪টি ইউনিয়নে ৬ জন প্রার্থীর কাছ থেকে জন প্রতি ২ হাজার হারে আয় হয়েছে ১২ হাজার টাকা। ৫নং ওয়ার্ডে ৫টি ইউনিয়নে ৯ জন প্রার্থীর কাছ থেকে জন প্রতি ২ হাজার ৫ শত টাকা করে আয় হয়েছে ২২ হাজার ৫ শত টাকা।
৬নং ওয়ার্ডে ৪টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় ৬ হাজার ৫ শত টাকা করে ৬ জন প্রার্থীর কাছ থেকে আয় হয়েছে ৩৯ হাজার টাকা। ৪, ৫, ৬নং সংরক্ষিত মহিলা সদস্য ওয়ার্ড ১১ হাজার করে ৭ জন প্রার্থীর কাছ থেকে আয় হয়েছে ৭৭ হাজার টাকা। ৭নং ওয়ার্ডে ৫টি ইউনিয়নে ২ হাজার ৫ শত টাকা করে ৭ জন প্রার্থীর কাছ থেকে আয় হয়েছে ১৭ হাজার ৫ শত টাকা। ৮নং ওয়ার্ডে ৫টি ইউনিয়নে ২ হাজার ৫ শত টাকা করে ৮ জন প্রার্থীর কাছ থেকে আয় হয়েছে ২০ হাজার টাকা। ৯নং ওয়ার্ডে ৫টি ইউনিয়নে ২ হাজার ৫ শত টাকা করে ৮ জন প্রার্থীর কাছ থেকে আয় হয়েছে ২০ হাজার টাকা। ৭, ৮, ৯নং সংরক্ষিত মহিলা সদস্য ওয়ার্ডে ৩ জন প্রার্থীর কাছ থেকে ৭ হাজার ৫ শত টাকা হারে আয় হয়েছে ২২ হাজার ৫শত টাকা। ১০নং ওয়ার্ডে ৪টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় ৬ হাজার ৫ শত টাকা করে ৪ জন প্রার্থীর কাছ থেকে আয় হয়েছে ২৬ হাজার টাকা। ১১নং ওয়ার্ডে ৫টি ইউনিয়নে ২ হাজার ৫ শত টাকা করে ৩ জন প্রার্থীর কাছ থেকে আয় হয়েছে ৭ হাজার ৫ শত টাকা। ১২নং ওয়ার্ডে ৪টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় ৬ হাজার ৫ শত টাকা করে ৮ জন প্রার্থীর কাছ থেকে আয় হয়েছে ৫২ হাজার টাকা। ১০, ১১, ১২নং সংরক্ষিত মহিলা সদস্য ওয়ার্ডে ১৫ হাজার ৫ শত টাকা করে ৫ জন প্রার্থীর কাছ থেকে আয় হয়েছে ৭৭ হাজার ৫ শত টাকা। ১৩নং ওয়ার্ডে ৫টি ইউনিয়নে ২ হাজার ৫ শত টাকা করে ৬ জন প্রার্থীর কাছ থেকে আয় হয়েছে ১৫ হাজার টাকা। ১৪নং ওয়ার্ডে ৪টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভা মিলে ৬ হাজার ৫ শত টাকা করে ৩ জন প্রার্থীর কাছ থেকে আয় হয়েছে ১৯ হাজার ৫ শত টাকা। ১৫নং ওয়ার্ডে ৫টি ইউনিয়নে ২ হাজার ৫ শত টাকা করে ৪ জন প্রার্থীর কাছ থেকে আয় হয়েছে ১০ হাজার টাকা। ১৩, ১৪, ১৫নং সংরক্ষিত মহিলা সদস্য ওয়ার্ডে ৬ জন প্রার্থীর কাছ থেকে ১১ হাজার ৫ শত টাকা হরে আয় হয়েছে ৬৯ হাজার টাকা।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত