বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে সিলেটে তিন দিনব্যাপী ইজতেমা সমাপ্ত



2016-12-30-11-43-19-768x335নিজস্ব প্রতিবেদক :: আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে সিলেটে তাবলীগ জামাতের ৩ দিনব্যাপী ইজতেমা আজ শনিবার শেষ হয়েছে। বেলা সাড়ে ১১ টায় আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে ওই ইজতেমা সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়। এতে বাংলাদেশসহ গোটা বিশ্বের মুসলিম উম্মাহর সুখ, সমৃদ্ধি ও কল্যাণ কামনা করা হয়। ইসলামের নামে সন্ত্রাস ও উগ্রবাদ সৃষ্টিকারীদের শান্তির পথে ফিরে আসার আহ্বান জানানো হয়। আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করেন ঢাকার কাকরাইল মসজিদের তাবলীগ জামায়াতের মুরব্বি মাওলানা রবিউল হক।
এর আগে ইজতেমায় বিভিন্ন এলাকা থেকে আগত মুরুব্বীসহ দেশি-বিদেশি তবলীগ জামায়েতের মুরুব্বীরা দ্বীন ও ইসলাম কায়েমের জন্য মুসল্লিদের উদ্দেশে কুরআন ও হাদিস থেকে বয়ান রাখেন। আখেরি মোনাজাতে অংশ নিতে সকাল থেকে ইজতেমা ময়দানে মুসল্লিদের ঢল নামে।
আখেরি মোনাজাতে সিলেটের বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ প্রায় ২ লক্ষাধিক মুসল্লি অংশগ্রহণ করেন।
সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার জেদান আল মুসা ডেইলি সিলেটকে জানান, ইজতেমাকে ঘিরে আমাদের বিশেষ নিরাপত্তা বলয় ছিল। যেকোনো ধরণের অপ্রীতিকর পরিস্থিতি মোকাবেলায় আমরা সম্পূর্ণ প্রস্তুত ছিলাম। তাছাড়া আজ আখেরি মোনাজাতে বিপুল সংখ্যক মুসল্লির সমাগম ঘটবে জেনে পূর্ব থেকেই নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরো জোরদার করা হয়েছিল।
উল্লেখ্য, সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার বাইপাস সড়ক সংলগ্ন লতিপুর-খিদিরপুর হাওরে গত বৃহস্পতিবার থেকে ইজতেমা শুরু হয়। লাখো মুসল্লি এ ইজতেমায় অংশ নেন। মুসল্লিদের ‘আল্লাহু আকবার’ ‘আল্লাহুম্মা আমিন’ ধ্বনিতে মুখরিত হয় গোটা এলাকা। টঙ্গির তুরাগ নদীর তীরে বিশ্ব ইজতেমায় মুসল্লীদের উপস্থিতি বেশি হওয়ায় এবার ৩২ জেলার অংশগ্রহণে তুরাগ তীরে ইজতেমা অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া বাকি ৩২ জেলায় জেলাভিত্তিক ইজতেমা পালন করবে। এরই ধারাবাহিকতায় সিলেটেও তিন দিনব্যাপী ইজতেমা শুরু হয়।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত