বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

নবীগঞ্জে এমপি কেয়া চৌধুরী ও আ‘লীগ নেতা মিলাদ গাজী সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া



নবীগঞ্জ প্রতিনিধি:: ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সংলগ্ন নবীগঞ্জ উপজেলার দেবপাড়া ইউনিয়নের বালিদারা বাজারে ফ্রি চিকিৎসা দেয়াকে কেন্দ্র সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরী ও সাবেক মন্ত্রী আলহাজ্ব দেওয়ান ফরিদ গাজী তনয় আওয়ামীলীগ নেতা দেওয়ান শাহ নেওয়াজ গাজী মিলাদ সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এ সময় বাজারে আতংক ছড়িয়ে পড়লে সাধারন মানুষজন দিকবেদিক ছুটাছুটি করতে থাকে। পরে এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গের মধ্যস্থতায় পরিস্থিতি শান্ত হয়। খবর পেয়ে নবীগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে। চিকিৎসা সেবা চলাকালিন পর্যন্ত সেখানে পুলিশ মোতায়েন থাকে।
এলাকাবাসী সুত্রে জানাযায়, সিলেট-হবিগঞ্জ সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদ্য আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরী প্রচেষ্টায় শনিবার সকাল ১১ টার দিকে সমাজ কল্যান মন্ত্রনালয়ের অধিনে জাতীয় প্রতিবন্ধি ফাউন্ডেশনের পরিচালনায় হবিগঞ্জ প্রতিবন্ধী সেবা ও সাহায্য কেন্দ্রের আয়োজনে মোবাইল থেরাপি ভ্যান সেবা কার্যক্রম এর ফ্রি চিকিৎসা সেবার আয়োজন করেন। এ খবর পেয়ে হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগ নেতা সাবেক মন্ত্রী আলহাজ্ব দেওয়ান ফরিদ গাজী তনয় দেওয়ান শাহ নেওয়াজ গাজী মিলাদ সমর্থক স্থানীয় আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ মোবাইল মেডিকেল ক্যাম্প স্থলে গিয়ে তাদেরকে না জানিয়ে মেডিকেল ক্যাম্প আয়োজন করার কারন জানতে চায়। এ নিয়ে সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরীর পক্ষে আয়োজককারীদের সাথে বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে দু’গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে বাজারের পরিস্থিতি উত্তপ্ত হলে স্থানীয় সুশিল সমাজের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেন। পরে পরিস্থিতি শান্ত হওয়ার পর সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরী উপস্থিত হয়ে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পের উদ্ধোধন করেন।
এ সময় অন্যানের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, নবীগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) জিতেন্দ্র কুমার নাথ, জেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক অনুপ কুমার দেব, স্থানীয় চেয়ারম্যান এডভোকেট মাসুম আহমদ জাবেদ, প্রতিবন্ধি বিষয়ক কর্মকর্তা ফারজানা বিনতে মাহমুদ, উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা আব্দুর নুর, ডাঃ জিনাত ফারহানা প্রমুখ। এ সময় ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প বিকেল ৬টা পর্যন্ত চলাকালিন সময়ে পুলিশ মোতায়েন ছিলো। উক্ত মেডিকেল ক্যাম্পে কয়েক শতাধিক লোকজন চিকিৎসা সেবা গ্রহন করেন।
সচেতন মহলের লোকজন জানান, এসব ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প খুব একটি উদ্যোগ তবে স্থানীয়দের সাথে কথা বলে সবাইকে সাথে রেখে করলে এমন ঘটনার সৃষ্ঠি হতোনা। সাবেক এমপি ও মন্ত্রীর বাড়ীর পাশে গিয়ে এসব উন্নয়ন কর্মকান্ড দেখানো এটাও রাজনৈতির খেলা বলে মনে করেন অনেকই।
এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান এডভোকেট মাসুম আহমেদ জাবেদ বলেন, সকাল বেলায় ফ্রি চিকিৎসা সেবা ক্যাম্প নিয়ে আওয়ামীলীগের দু’গ্রুপের মধ্যে সামান্য ভুল বুঝাবুঝি হয়েছিলো। পরে স্থানীয় ভাবে বিষয়টি মিমাংসা করার পর ক্যাম্পের উদ্ধোধন করা হয়।
এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) জিতেন্দ্র কুমার নাথ জানান, সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মাননীয় সংসদ সদস্য কে নিয়ে আমরা ফ্রি মোবাইল থেরাপি ভ্যান সেবা কার্যক্রমের উদ্ধোধন করি। বিকেল ৬টা পর্যন্ত এ সেবা চলে। তবে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ব্যাপারে তিনি কিছু জানেন না বলেও জানান।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য এডভোকেট আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরীর সাথে মুটোফোনে একাধীকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ না করায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।
তবে আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরী তার ব্যক্তিগত ফেসবুক একাউন্টে ১০টি ছবি সংযুক্ত একটি পোষ্ট করেছেন। এতে তিনি লিখেছেন নান প্রতিবন্ধকতা পেরিয়েও কার্যক্রমে সফল হয়েছেন। নি¤েœ তার স্ট্যাটাস হুবুহুবু দেওয়া হলো। ‘‘জননেত্রী শেখ হাসিনা স্বপ্ন পূরনে অটিস্টিক ও প্রতিবন্ধী শিশুদের জন্য মোবাইল থেরাপী ভ্যানে ২৩৪ জন রোগীকে বিশেষ স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করা হয়। নানান প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে, নবীগঞ্জ উপজেলার ১০ নং দেবপাড়া ইউনিয়ন বাজারে সকাল ১১টা থেকে সন্ধ্যা ৬.৩০মি: পযন্ত এই সেবা প্রদান করা হয়েছে।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত