রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

সুনামগঞ্জ-হবিগঞ্জ সরাসরি যোগাযোগের আওতায় আসছে :‘ মদনপুর-দিরাই-শাল্লা’ আঞ্চলিক মহাসড়ক হচ্ছে



জামালগঞ্জ প্রতিনিধি:: ::সুনামগঞ্জ – মদনপুর – দিরাই – শাল্লা’ আঞ্চলিক মহাসড়ক হতে যাচ্ছে। এ লক্ষ্যে সড়ক বিভাগ কাজ শুরু করেছে। দুই বছর আগে হবিগঞ্জের এক সমাবেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই ঘোষণা দিয়েছিলেন। এই সড়কটির সঙ্গে হবিগঞ্জের ‘জলসুখা – আজমিরীগঞ্জ – হবিগঞ্জ’ রুটে যুক্ত হবে। ফলে আন্তঃজেলার সঙ্গে মহাসড়ক হিসেবে যোগাযোগ স্থাপিত হবে এই সড়কটিতে। এই সড়কের নির্মাণকাজ শেষ হলে রাজধানীর সঙ্গে দূরত্ব কমে আসার পাশাপাশি সুনামগঞ্জবাসীর আর্থসামাজিক অবস্থার পরিবর্তন সূচিত হবে। যোগাযোগ ও ব্যবসায় নতুন দিনের সূচনা করবে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

সুনামগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, ‘শাল্লা – জলসুখা সড়কাংশ নির্মাণ প্রকল্প’র আওতায় সুনামগঞ্জ জেলার শাল্লা উপজেলা এবং হবিগঞ্জ জেলার আজমিরীগঞ্জ উপজেলায় রাস্তাটি বাস্তবায়নের কাজ শুরু হয়েছে। এটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অগ্রাধিকারভিত্তিক হাওর এলাকার যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন প্রকল্প। কাজটির বাস্তবায়ন যথাসময়ে শেষ করতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নজরদারি রয়েছে বলে জানা গেছে।

বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, হবিগঞ্জ ও তাহিরপুরে পৃথক জনসভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই সড়কটি নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। ‘পরিকল্পনা কমিশন ও সড়ক পরিবহন উইংয়ের’ সুনামগঞ্জ – মদনপুর – দিরাই – শাল্লা – জলসুখা – আজমিরীগঞ্জ – হবিগঞ্জ মহাসড়কের ‘শাল্লা – জলসুখা সড়কাংশে নির্মাণ প্রকল্প’ নামে একটি প্রকল্প এখন বাস্তবায়নাধীন রয়েছে।

এই প্রকল্পের আওতায় সুনামগঞ্জ জেলার শাল্লা উপজেলা এবং হবিগঞ্জ জেলার আজমিরীগঞ্জ উপজেলার রাস্তাটি আঞ্চলিক মহাসড়ক হিসেবে যাত্রা শুরু করেব। প্রকল্পে প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছে ৪৬৮.৫৮ কোটি টাকা। জিওবির ব্যয় ধরা হয়েছে ৪৬৮.৮৫ কোটি টাকা। বাংলাদেশ সরকারের অর্থায়নে সড়কটির নির্মাণকাজ বাস্তবায়ন করবে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর।

সংশ্লিষ্টরা জানান, সুনামগঞ্জ – মদনপুর – দিরাই – শাল্লা – জলসুখা – আজমিরীগঞ্জ – হবিগঞ্জ মহাসড়কের শাল্লা – জলসুখা অংশে ১৫.৮৩ কি.মি. সড়কাংশ নির্মাণের মাধ্যমে সুনামগঞ্জ ও হবিগঞ্জ জেলার সঙ্গে সরাসরি সড়ক যোগাযোগ স্থাপিত হবে। দু’টি জেলার মধ্যে সরাসরি সড়ক যোগাযোগ স্থাপিত হলে আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন হবে। বাড়বে ব্যবসায়ে যোগাযোগ। এই উদ্দেশ্য সামনে রেখেই প্রকল্পটি নেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, বর্তমানে সুনামগঞ্জ অংশে মদনপুর থেকে দিরাই পর্যন্ত ২৭ কিলোমিটার সড়ক ‘জেলা সড়ক উন্নয়ন’ (সিলেট জোন) প্রকল্পের আওতায় উন্নয়ন কার্যক্রম চলছে। দিরাই থেকে শাল্লা পর্যন্ত ১৯ কিলোমিটার সড়ক উন্নয়নের জন্য ‘মদনপুর – দিরাই – শাল্লা’ (দিরাই – শাল্লা অংশ) সড়ক নির্মাণ নামে আরো একটি প্রকল্প চলমান রয়েছে। পরে শাল্লা থেকে জলসুখা (আজমিরীগঞ্জ) পর্যন্ত ১৫.৮০ কিলোমিটার সড়কাংশ ‘বিবেচ্য প্রকল্পের আওতায়’ নির্মাণের প্রস্তাব করেছেন সংশ্লিষ্টরা। এই অংশটিই দু’টি জেলার মধ্যে সংযোগ স্থাপিত করবে। আজমিরীগঞ্জ (জলসুখা) থেকে বানিয়াচং পর্যন্ত আরো ১৪ কিলোমিটার সড়কাংশ ‘বানিয়াচং – আজমিরীগঞ্জ সড়ক নির্মাণ প্রকল্প’র আওতায় নেওয়া হয়েছে। এই প্রকল্পের কাজও বর্তমানে চলমান আছে। বানিয়াচং থেকে হবিগঞ্জ পর্যন্ত আরো ১৩ কিলোমিটার সড়কাংশ জেলা উন্নয়ন (সিলেট জোন) প্রকল্পের আওতায় উন্নয়ন করা হয়েছে। এভাবে বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে সুনামগঞ্জ ও হবিগঞ্জ জেলার মধ্যে সংযোগ স্থাপনকারী মহাসড়কটির নির্মাণকাজ এগিয়ে চলছে।

সড়ক ও জনপথের সংশ্লিষ্টরা জানান, বিবেচ্য প্রকল্পের আওতায় প্রস্তাবিত সড়কটি নির্মাণ করা হলে সুনামগঞ্জ – আজমিরীগঞ্জ ও হবিগঞ্জের মধ্যে সরাসরি সড়ক যোগাযোগ স্থাপিত হবে। দুটি কৃষিপ্রধান জেলার কৃষি ও মৎস্য সম্পদের চাহিদাও বৃদ্ধি পাবে। যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ হলে স্থানীয় উৎপাদিত কৃষিজ পণ্য দ্রুত দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে পরিবহন করা সম্ভব হবে। এতে কৃষকের উন্নতি হবে।
প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করতে সুনামগঞ্জ ও হবিগঞ্জ জেলাকে সংযোগের লক্ষ্যে সুনামগঞ্জ – মদনপুর – দিরাই – শাল্লা – জলসুখা – আজমিরীগঞ্জ – হবিগঞ্জ মহাসড়কের শাল্লা থেকে জলসুখা পর্যন্ত ১৫.৮০ কিলোমিটার সড়কাংশ নির্মাণের (৫.৫ মিটার প্রশস্ত) জন্য সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ হতে ৪৬৮.৫৮ কোটি টাকা প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছে। গত জুলাই ২০১৬ থেকে জুন ২০১৯ পর্যন্ত মেয়াদের এই প্রকল্পটি বাস্তবায়নের জন্য প্রস্তাব করেছেন সংশ্লিষ্টরা।

সুনামগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, মদনপুর – দিরাই – শাল্লা সড়কটি আঞ্চলিক মহাসড়ক হিসেবে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বিভিন্ন প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে কোনটির কার্যক্রম চলছে, কোনটির কাজ প্রস্তাবনা আকারে রয়েছে। এই সড়কটি শাল্লা থেকে আজমিরীগঞ্জ অংশ প্রকল্প করে মন্ত্রণালয়ে জমা দেওয়া হয়েছে। সুনামগঞ্জের সঙ্গে হবিগঞ্জ জেলার সরাসরি যোগাযোগ স্থাপিত হবে। দিরাই – শাল্লা সড়কটি আঞ্চলিক মহাসড়ক হিসেবে রূপ নিলে সুনামগঞ্জ জেলার আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নতি হবে।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত