মঙ্গলবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

৫০ হাজার পুলিশ নিয়োগের সিদ্ধান্ত



নিউজ ডেস্ক ::৫০ হাজার পুলিশ নিয়োগের সিদ্ধান্ত হয়েছে এবং ইতোমধ্যেই ৩৫ হাজার পুলিশ নিয়োগ দেয়া হয়েছে জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল জানিয়েছেন, পুলিশে ব্যাপক পরিবর্তন আনতে চাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী।
এ ব্যাপারে তিনি সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দিয়েছেন। আজ শনিবার রাজধানীতে একটি অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব গ্লাস অ্যান্ড সিরামিকসের নবীন বরণ এবং বিদায় সংবর্ধনা- ২০১৭ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব গ্লাস অ্যান্ড সিরামিসকের সভাপতি বেনজির রহিম খাঁন বিপুল। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্সের সভাপতি এ কে এম এ হামিদ, সাধারণ সম্পাদক মো. শামসুর রহমান, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব গ্লাস অ্যান্ড সিরামিসকের অধ্যক্ষ মো. আয়ুব আলী, শিল্পাঞ্চল থানার সাধারণ সম্পাদক মো. কাজী রেজাউল হক রেজা, এস.এম রবিউল ইসলাম সোহেল, আজিজুল হক রানা, সৈয়দ মিজানুর রহমান, মহিউদ্দিন আহম্মেদ প্রমুখ।
মন্ত্রী জানান, আগে একটি থানায় একজন পরিদর্শক ছিলেন, এখন প্রতি থানায় দুইজন পরিদর্শক পদমর্যাদার কর্মকর্তা ও একজন সহকারী পুলিশ সুপার পদমর্যাদার কর্মকর্তা নিয়োগ দেয়া হয়েছে। থানায় থানায় পুলিশের জন্য গাড়ি বাড়ানোর কথা ভাবা হচ্ছে। জঙ্গি দমনে পুলিশের ভূমিকার কথা উল্লেখ করে তিনি জানান, পুলিশকে আরও আধুনিক করা হবে। এজন্য পুলিশে সংস্কার চলছে।
বর্তমান সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকা-ের কথা উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশের চেহারা পাল্টে গেছে। এক সময় আমাদের খাদ্যের ঘাটতি ছিল, বিদ্যুতের ঘাটতি ছিল। এখন আর আমাদের কোনো অভাব নেই। প্রধানমন্ত্রী দেশকে এগিয়ে নিয়েছেন, সেই ধারাকে অব্যাহত রাখতে সবার প্রতি আহ্বান জানান তিনি।
শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে কামাল বলেন, যারা এখানে এসেছেন তারা সুন্দর একটি ইনস্টিটিউটে এসেছেন। আমরা গ্লাস সেক্টরে অনেক এগিয়ে গেছি। আমরা তিনটি বড় বড় গ্লাস ফ্যাক্টরি চালু করেছি। এসব প্রতিষ্ঠানে দক্ষ কারিগর লাগবে। এসব কারিগর এই প্রতিষ্ঠান থেকেই তৈরি হবে। এখন কেউ বেকার নেই, পাস করার সঙ্গে সঙ্গে চাকরি হয়ে যাচ্ছে। তিনি জানান, বর্তমানে কারিগরি শিক্ষার হার ১৪ শতাংশ। ১৪টি জেলায় কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। বেসরকারি খাতেও কারিগরি শিক্ষার বিস্তার ঘটাচ্ছে। কারিগরি শিক্ষার্থীদের উচ্চ শিক্ষার দাবি অত্যন্ত যৌক্তিক। সেইজন্য তাদের সুযোগ দেয়া উচিত।
এ সময় মন্ত্রী সিরামিক ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ ও বাংলাদেশ ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্সের সভাপতি এ কে এম এ হামিদকে সঙ্গে নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থীদের জন্য বাস চাওয়ার পরামর্শ দেন তিনি। কারিগরি নারী শিক্ষার্থীদের জন্য একটি হোস্টেল তৈরি আশ্বাসও দেন তিনি। এ সময় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের টেন্ডারবাজি দখলবাজি না জড়িয়ে দেশ গঠনে ভূমিকা রাখার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, কেউ বিপদগামী হলে তাদের ছাত্রত্ব বাতিল হবে।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত