সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

সুনামগঞ্জে বিয়ের সাত পাকের কুঞ্জ ভাংচুর নারী সহ দু’জনকে চুরিকাঘাত



সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:::সুনামগঞ্জ সংখ্যালঘু পরিবারের বিয়ের সাত পাকের কুঞ্জ ভাংচুর ও এক নারী সহ দু’জনকে চুরিকাঘাত করে আহত করেছে দুবৃক্তরা। পৌর শহরের সোমপাড়ায় সংখ্যালঘু বেশ কয়েকটি পরিবারের সদস্যদের উপর দু’ দুবৃক্তরা মঙ্গলবার রাতে এ হামলা চালিয়েছে বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে। হামলায় গুরুতর আহত প্রদীপ বর্মণ ও তাঁর স্ত্রী চম্পা বর্মণকে মঙ্গলবার রাতে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।’ হামলার পর পুলিশী প্রহরায় মঙ্গলবার রাতে ওই বিয়ের অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়।
পৌর শহরের সোমপাড়া মহল্লার উলঙ্গ তালুকদার জানান, আমার মেয়ের বিয়ের অনুষ্ঠান উপলক্ষে সোমবার রাতে বাড়িতে গান বাজনার অনুষ্টানে ঢুকে আরপিন নগরের মৃত শাহজাহান বখ্ত’র ছেলে হাসান বখ্ত নামের এক তরুণ মদ্যপ অবস্থায় কয়েকজনকে মারধোর করে চলে আসে। পরে মঙ্গলবার রাতে বিয়ের অনুষ্টান সম্পন্ন করতে মহল্লাবাসী মিলে বিয়ের সাত পাকের কুঞ্জ তৈরী করার সময় হাসান ও তার সাথে থাকা বেশ কিছু দুবুক্ত মিলে বিয়ের কুঞ্জ ভাংচুর করে। এ সময় বাঁধা দিতে গেলে মহল্লার অনিরুদ্ধ সরকার ও তার স্ত্রী চম্পা বর্মণকে দুবৃক্তরা চুরিকাখাত করে। একই সময়ে দুবৃক্তদের দ্বারা শারিরীক ভাবে লাঞ্চনার শিকার হন জোছনা রানী চন্দ, হরিচরণ দাস, শিপন দাস, অরুণ বর্মণ, লক্ষী বর্মণ, নিলু সরকার, দীপ্তি সরকার, রীমা তালুকদার।’
পৌর কাউন্সিলর চঞ্চল কুমার লৌহ বলেন, ঘটনাটি খুবই নিন্দনীয় কাজ, এ ব্যাপারে দ্রুত আইনি ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানাচ্ছি।’ সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার (ওসি) মো. হারুনুর রশীদ চৌধুরীর নিকট এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে চাইলে তিনি বলেন, হাসান বখত’র নেতৃত্বে ওই বিয়ের বাড়িতে হামলা ও ভাংচুর চালানো হয়েছে বলে জানতে পেরেছি।’ তিনি আরো বলেন পরে পুলিশী প্রহরায় মঙ্গলবার রাতে তাদের বিয়ের অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত