বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

কুয়েতে ধর্ষণের দায়ে বাংলাদেশি যুবকের ফাঁসি কার্যকর



প্রবাস ডেস্ক:: কুয়েতে নেপালি নারীকে ধর্ষণের দায়ে মোহাম্মদ শাহ আলম নামের এক বাংলাদেশি যুবক এবং বিভিন্ন অপরাধে আরও ৬ জনের ফাঁসি কার্যকর করেছে দেশটি। বুধবার স্থানীয় সময় ভোরে এ দণ্ড কার্যকর করা হয়।
এর আগে, ২৮ নভেম্বর ২০০৮ সালে অপহরণের পর ধর্ষণ ও অত্যাচারের দায়ে বাংলাদেশি যুবক শাহ আলমের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়। পরে ২০১৩ সালে তার বিরুদ্ধে ফাঁসির আদেশ দেয় কুয়েতের সর্বোচ্চ আদালত। শাহ আলমের বাড়ি ঢাকার কদমতলী থানার ফরিদাবাদে।
এদিকে, কুয়েতস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের শ্রম কাউন্সিলর আবদুল লতিফ খান জানান, বিগত দুই বছর যাবৎ নেপাল ও বাংলাদেশ দূতাবাস অনেক চেষ্ঠা করেও অভিযোগকারীর খোঁজে পাওয়া যায়নি। ওই নেপালির মালিক ছিল একজন ইরানি। তিনিও কুয়েত ত্যাগ করে চলে গেছেন।
কাউন্সিলর আবদুল লতিফ খানের মতে অভিযোগকারীকে পেলে ক্ষতিপূরণের মাধ্যমে হয়তো শাহ আলমকে বাচাঁনোর চেষ্টা করা যেত। এজন্য নেপাল দূতাবাস ও বাংলাদেশ দূতাবাস যথেষ্ট চেষ্টা করেছেন। তবে তার সন্ধান পাওয়া যায়নি। ২৪ জানুয়ারি স্থানীয় সময় বিকাল পৌনে ৪টার দিকে শাহ আলমের সাথে শেষ দেখা করে দূতাবাস কর্তৃপক্ষ। এরপর তার শেষ ইচ্ছায় মায়ের সঙ্গে প্রায় ৫ মিনিট কথা বলেন শাহ আলম। এ সময় তিনি ছোট ভাই রাসেলকে ভাল করে দেখে রাখতে মাকে অনুরোধ করেন।
সূত্র: বাংলাদেশ প্রতিদিন

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত