বৃহস্পতিবার, ২২ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

কোম্পানীগঞ্জে টিলা ধসে মৃত্যু : তিনজনের লাশ কবর থেকে তুলে ময়নাতদন্তের নির্দেশ



নিউজ ডেস্ক ::
কোম্পানীগঞ্জে টিলা কেটে পাথর তোলার সময় পাহাড় ধসে নিহতদের মধ্যে গোপনে দাফন করা তিনটি মৃতদেহ কবর থেকে তুলে ময়নাতদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। গত বৃহস্পতিবার দেয়া নির্দেশটি গতকাল রোববার হাতে পেয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত বৃহস্পতিবার এ নির্দেশ দেন কোম্পানীগঞ্জের বিচারিক আদালত।
কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার ভোলাগঞ্জের শাহ আরেফিন টিলা এলাকার মাটিয়ার টিলায় পাহাড় ধ্বসে পাথর শ্রমিক নিহতের ঘটনায় প্রথমে কতজনের মৃত্যু হয়েছিল তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে তাৎক্ষণিকভাবে দুইজনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছিল পুলিশ।
ঘটনার অনুসন্ধানে পরবর্তীকালে আরো তিনজনের মৃতদেহ নেত্রকোনার সদর উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় দাফন করা হয়েছে বলে জানতে পারে পুলিশ। অর্থাৎ গত ২৩ জানুয়ারি পাহাড় ধসে নিহতের ঘটনায় ছয়জন পাথর শ্রমিক মারা যাবার ঘটনা ঘটে।
গত বৃহস্পতিবার সিলেটের ওই আদালতে মৃতদেহ কবর থেকে তুলে ময়নাতদন্ত করার অনুমতি চেয়ে আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কোম্পানীগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রুহুল আমিন। তিনি বলেন, পাহাড় ধসের পর দুজনের মৃত্যু ও দাফনের ব্যাপারে জানতে পারে পুলিশ। পরে আরো তিনজনকে গোপনে দাফন করার বিষয়টি পুলিশের নজরে এলে ময়নাতদন্তের জন্য আদালতের কাছে আবেদন করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা।
গোপনে দাফন করা ওই তিনজনের নাম জহির, কাদির ও আল হাদি বলে জানান সিলেট জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুজ্ঞান চাকমা। তারা তিনজনই নেত্রকোনার সদর উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের বাসিন্দা।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত