সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ২৯ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বাবু সুরঞ্জিত সেন গুপ্তের প্রয়ানে যুক্তরাজ্যে শোক সভা



যুক্তরাজ্য সংবাদদাতা: বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক ফোরাম যুক্তরাজ্যের পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচিকে তাৎক্ষণিক ভাবে বাতিল করে দিয়ে মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য, ভাটি বাংলার সিংহ পুরুষ, বর্ষীয়ান পার্লামেন্টারিয়ান, বৃহত্তর সিলেটের কৃতিসন্তান, বাংলাদেশের অন্যতম সংবিধান প্রণেতা জননেতা শ্রী সুরঞ্জিত সেন গুপ্তের প্রয়ানে এক শোকসভার আয়োজন করা হয়। ৫ ফেব্রুয়ারী রোববার দুপুর ১২ ঘটিকায় বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক ফোরাম যুক্তরাজ্যের সভাপতি মোহাম্মেদ নাজিমুদ্দিনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদির চৌধুরী মুরাদের পরিচালনায়, এসেক্সের নিজ কার্যালয়ে শোক সভা পালন করা হয় ।
শোকসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জননেতা আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী ভারাক্লান্ত মনে পূর্ব কর্মসূচি বাতিল করেন।
শোক সভায় উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন বিশেষ অতিথি যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আহাদ চৌধুরী, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ভিপি খসরুজ্জামান খসরু , বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক ফোরাম যুক্তরাজ্যের সহ সভাপতি সাজ্জাদুর রহমান চৌধুরী, সহ সভাপতি কামাল হোসেইন , সহ সভাপতি আসুক আহমেদ, সহ সভাপতি হেলাল আহমেদ চৌধুরী, যুগ্ম সম্পাদক শাহানুর চৌধুরী, যুগ্ম সম্পাদক রাজিয়া রহমান চৌধুরী, কোষাধ্যক্ষ মো: আব্দুল জলিল, মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা নাজরাতুন নাঈম, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল মালিক, তথ্য প্রযুক্তি ও অফিস বিষয়ক সম্পাদক সাইদুল খালেদ, শিশু বিষয়ক সম্পাদক নাসির উদ্দিন আহমেদ ফয়সাল, মহানগরের আহবায়ক রাবেয়া জামান জুসনা, সদস্য সচিব হেনা বেগম সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।
বক্তারা বলেন, তাঁর মৃত্যুতে আমরা হারালাম একজন অভিভাবককে, এ ক্ষতি অপূরণীয়।
বক্তারা তাঁর প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা, গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেন এবং শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।
উল্লেখ্য, বাবু সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত ৫ ফেব্রুয়ারী রবিবার ভোর ৪ টা ১০ মিনিটে ল্যাব এইড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। তিনি হিমোগ্লোবিন স্বল্পতাজনিত অসুস্থতায় ভুগছিলেন। ৩ ফেব্রুয়ারি অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ল্যাবএইড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
স্বাধীন দেশের প্রথম সংসদসহ চার দশকের প্রায় সব সংসদেই নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের জন্ম ১৯৪৬ সালে সুনামগঞ্জের আনোয়ারাপুরে। প্রথম জীবনেই বামপন্থি আন্দোলনে জড়িয়ে পড়া সুরঞ্জিত দ্বিতীয়, তৃতীয়, পঞ্চম, সপ্তম, অষ্টম, নবম ও দশম জাতীয় সংসদসহ মোট সাতবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ১৯৯৬ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সংসদ বিষয়ক উপদেষ্টার দায়িত্বে ছিলেন। ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ দ্বিতীয়বারের মতো ক্ষমতায় আসার পর তিনি রেলমন্ত্রী হন।
দেশ বরন্য এই নেতার মুত্যুতে আরো শোক প্রকাশ করেন- বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক ফোরাম যুক্তরাজ্যের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহ শাফি কাদির।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত