শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

জুড়ী শহরের প্রাণকেন্দ্রে খোলা জ্বালানী তেলের দোকান, দুর্ঘটনার আশংকা



কুলাউড়া প্রতিনিধি: মৌলভীবাজারের জুড়ী শহরের প্রাণকেন্দ্রে অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে পরিচালিত একটি খোলা পেট্রোল, অকটেনসহ বিভিন্ন প্রকার জ্বালানী দ্রব্যের ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান নিয়ে দুর্ঘটনার আশংকা দেখা দিয়েছে। যেকোন সময় বড় ধরনের অগ্নিকান্ডের আশংকায় ব্যবসায়ীরা জ্বালানী তেলের এ দোকানটি স্থানান্তরের দাবী জানিয়েছেন।
সরেজমিনে জানা গেছে, জুড়ী উপজেলার পশ্চিম জুড়ী ইউনিয়নের ভবানীগঞ্জ বাজারের বাস স্টেশন ও দ্বিতল বিশিষ্ট দুইটি বাণিজ্যিক মার্কেট সংলগ্ন দেওয়ান ইরমান আলী এজেন্ট এন্ড প্যাক পয়েন্টে দীর্ঘদিন ধরে খোলা আকাশের নিচে পেট্রোলিয়ামের ব্যবসা পরিচালিত হচ্ছে। সংলগ্ন মার্কেটের ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করেন জ্বালানী তেল বিক্রয় আইন অমান্য করে দেওয়ান ইরমান আলী এজেন্ট এন্ড প্যাক পেট্রোলিয়াম দ্রব্য বিক্রি করছে। এতে যে কোন মূহুর্তে বড় ধরনের দূর্ঘটনার আশংকা রয়েছে।
জুড়ী ভবানীগঞ্জবাজার পরিচালনা কমিটির সভাপতি হাজী আয়াজ উদ্দিন জানান, খোলা এ পেট্রোলের দোকানটি জুড়ী বাসস্টেশন সংলগ্ন এবং তিন দিকে মার্কেট গড়ে উঠায় বর্তমানে অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। দুর্ঘটনার আশংকায় ব্যবসায়ীরা দোকানটি সরানোর ব্যাপারে অভিযোগ করছেন। তিনি পেট্রোলের দোকানের ৪ স্বত্তাধিকারীর ৩ জন দেওয়ান নিজাম উদ্দিন, নাসির উদ্দিন ও সফর উদ্দিনের সাথে কথা বলেছেন। স্থানান্তরের ব্যাপারে তারা একমত হলেও অপর স্বত্তাধিকারী দেওয়ান আলাউদ্দিন বিষয়টিকে গুরুত্ব দিচ্ছেন না।
দেওয়ান আলাউদ্দিন জানান, লাইসেন্সের শর্ত পালন করেই খোলা জ্বালানী তেল বিক্রয় করছেন। দুর্ঘটনার ব্যাপারে সর্বোচ্চ সতর্ক রয়েছেন এবং প্যাক পয়েন্টটি নিরাপদ স্থানে স্থানান্তরেরও পরিকল্পনা রয়েছে। জুড়ী ইউএনও মোহাম্মদ নাছির উল্যাহ খান জানান, দেওয়ান ইরমান আলী এজেন্ট এন্ড প্যাক পয়েন্টে খোলা ও ঝুঁকিপূর্ণ পরিবেশে পেট্রোলিয়াম দ্রব্য বিক্রির বিষয়টি তার জানা নেই। তিনি খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা নিবেন।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত