বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

মৌলভীবাজারের ৫ রাজাকারের বিরুদ্ধে ভয়ংকর অপরাধের সাক্ষ্য গ্রহণ



মৌলভীবাজার সংবাদদাতা:: আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল (আইসিটি)-১ মৌলভীবাজারের রাজনগরের ৫ রাজাকারের বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধ মামলার ৮ম সাক্ষির সাক্ষ্য রেকর্ড করে।
সাক্ষ্য দেন কৃষক আবদুল কাদির। এরপর আসামী পক্ষের কৌঁসুলি তাকে জেরা করেন। পাঁচ রাজাকার হলো শামসুল হোসেন তরফদার ওরফে আশরাফ, মো. নেসার আলী, ইউনুস আহমেদ, উজির আহমেদ চৌধুরী ও মোবারক মিয়া।
কাদির বলেন, ‘১৯৭১ সালের ২৯ নভেম্বর ভোরে অভিযুক্ত ৫ রাজাকার প্রায় ১৫০ জন পাকিস্তানি সেন্য ও রাজাকার আমাদের গ্রাম ঘেরাও করে। আমাকে, আমার বড় ভাই মুক্তিযোদ্ধা আবদুল বাসিত বাদশা ও প্রতিবেশী নজাবত আলীকে আটক করে। তারা আমাদেরকে রাজনগর থানায় নিয়ে সারাদিন বেধড়ক মারধর করে।’
তিনি বলেন, ‘সন্ধ্যায় গাড়িতে করে আমাদেরকে মৌলভীবাজার সেনা ক্যাম্পে নিয়ে যাওয়ার পথে আবার মারধর করে। এক পর্যায়ে আমি জ্ঞান হারিয়ে ফেলি। মৃত ভেবে তারা আমাকে গাড়ি থেকে ফেলে দেয়। তারা আমার ভাই ও নজাবত আলীকে নিয়ে যায়। ৯ ডিসেম্বর মৌলভীবাজার সরকারি কলেজের দক্ষিণ পাশে অন্যদের সঙ্গে তাদের গলিত লাশ পাওয়া যায়।’
এ সময় কাঠগড়ায় দাঁড়ানো ইউনুস ও উজিরকে সনাক্ত করেন এবং তাদের মৃত্যুদন্ড প্রদানের আবেদন জানান।
সাক্ষ্য প্রদানের পর কাদিরকে জেরা করেন ইউনুসের আইনজীবী আবদুস সুবহান তরফদার ও অন্য চার রাজাকারের আইনজীবী। দুই সদস্যের ট্রাইব্যুনাল ১৪ মার্চ পর্যন্ত শুনানি মুলতবি করেন।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত