শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

সুপ্রীমকোর্ট প্রাঙ্গনের মূর্তি অপসারণ ও মদ-জুয়া-গান-বাজনা বন্ধের দাবিতে বাহুবলে বিশাল সমাবেশ



ছনি চৌধুরী,হবিগঞ্জ থেকে::সুপ্রীম কোর্ট প্রাঙ্গন থেকে গ্রীক মূর্তি অপসারণ ও মদ-জুয়া-গান-বাজনা বন্ধের দাবিতে বিশাল সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।  বৃহস্পতিবার অপরাহ্নে উপজেলা সদরের কাসিমুল উলুম মাদরাসা প্রাঙ্গনে ‘অনৈসলামিক কার্যকলাপ প্রতিরোধ কমিটি বাহুবল’-এর উদ্যোগে অনুষ্ঠিত সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি ও কাসিমুল উলুম মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা মনির উদ্দিন। সাধারণ সম্পাদক ও কাসিমুল উলুম মাদরাসার নায়েবে মুহতামিম মাওলানা আজিজুর রহমান মানিক-এর পরিচালনায় সভায় অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট ইসলামি চিন্তাবিদ মাওলানা আব্দুল বারী আনসারী, চলিতাতলা মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা আব্দুল খালিক, ডুবাঐ মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা আব্দুল্লাহ, বাহুবল মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মনিরুজ্জামান, ক্বারী হোসাইন আহমেদ, বাজার মসজিদের ইমাম মাওলানা তাজুল ইসলাম, মাওলানা আব্দুল কাইয়ূম জাকী, মাওলানা শাইখুল ইসলাম, মাওলানা আব্দুন নূর, মাওলানা কামরুল ইসলাম, মাওলানা আব্দুল জলিল ও মাওলানা আব্দুল আহাদ প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলমানের দেশের সর্বোচ্চ বিচারালয় সুপ্রীমকোর্টে কোন মূর্তি থাকতে পারে না। অবিলম্বে উক্ত মূর্তি অপসারণ করতে হবে। অন্যথায় এদেশের মুসলমানরা রাস্তায় নামতে বাধ্য হবে। আর ধর্মপ্রাণ মানুষ রাস্তায় নামলে কী হয়- তা সবাই জানেন। বক্তারা আরো বলেন- মদ, জুয়া, গান, বাজনা আমাদের সমাজ ব্যবস্থাকে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে গেছে। যে কোন মূল্যে এসব অনৈসলামিক কার্যকলাপ বন্ধ করতে হবে।

এদিকে, সমাবেশকে কেন্দ্র করে আজ দুপুরের পর থেকে উপজেলা সদর জনসমূদ্রে পরিণত হয়। উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম থেকে শত শত খন্ড খন্ড মিছিলসহকারে সমাবেশে যোগ দেন। জোহরের নামাজের পরপরই স্থানীয় কাসিমুল উলুম মাদরাসা মাঠ কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায়। সমাবেশ চলাকালে লোকজনকে মাদরাসার বিভিন্ন ভবন ও মসজিদের ছাদে অবস্থান নিতে দেখা গেছে। সমাবেশে সুপ্রীমকোর্ট প্রাঙ্গন থেকে মূর্তি অপসারণ, মদ-জুয়া-গাজা বন্ধসহ ৭ দফা দাবি উপস্থাপন করা হয়। সভায় রোহিঙ্গা মুসলিমদের সহায়তার জন্য অর্থ সংগ্রহ করা হয়।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত