সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

মা-বাবাকে হত্যা: হাইকোর্টে ঐশী



নিউজ ডেস্ক::পুলিশ কর্মকর্তা মাহফুজুর রহমান ও তার স্ত্রী স্বপ্না রহমান হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ঐশী রহমানকে হাইকোর্টে হাজির করা হয়েছে। তাকে হাজিরের পর বিচারপতিরা খাস কামরায় নিয়ে ঘটনার বিষয়ে বিভিন্ন কথা বলেন।

এ সময় আসামি পক্ষ ও রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী উপস্থিত ছিলেন। সোমবার সকালে কাশিমপুর কারা কর্তৃপক্ষ ঐশী রহমানকে হাইকোর্টে নিয়ে আসে। এর আগে গত ৩ এপ্রিল মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ঐশী রহমানের মানসিক অবস্থা পর্যবেক্ষণের জন্য ডিআইজি প্রিজনকে তাকে আদালতে হাজিরের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। ঐশীর ডেথ রেফারেন্স ও আপিলের শুনানিকালে আদালত এই আদেশ দেন।

ওই দিন আদালতে ঐশীর পক্ষে আইনজীবী সুজিত চ্যাটার্জি বাপ্পী বলেন, ঘটনার সময় ঐশী মানসিক বিকারগ্রস্থ ছিলেন। কোন স্বাভাবিক মানুষ তার পিতা-মাতাকে হত্যা করতে পারে না। তাই মৃত্যুদণ্ডের সাজা তার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে না।

তখন আদালত ঐশী বর্তমানে কোন কারাগারে আছে জানতে চান। ঐশীর কাশিমপুর কারাগারে থাকার কথা জানান আইনজীবী। পরে আদালত ঐশীকে হাজিরের নির্দেশ দেন। গত ১২ মার্চ ঐশীর ডেথ রেফারেন্স ও আপিলের শুনানি শুরু হয়।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ১৬ আগস্ট রাজধানীর মালিবাগের ফ্ল্যাট থেকে মাহফুজুর রহমান ও তাঁর স্ত্রীর ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার করা হয়। পরদিন মাহফুজের ভাই মশিউর রহমান এই ঘটনায় পল্টন থানায় হত্যা মামলা করেন। ওই দিনই ঐশী পল্টন থানায় আত্মসমর্পণ করেন।

মামলায় ২০১৫ সালের ১২ নভেম্বর ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল রায় দেন। রায়ে ওই দম্পতির মেয়ে ঐশীকে মৃত্যুদণ্ড ও তাঁর বন্ধু মিজানুর রহমানকে দুই বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। একই বছরের ১৯ নভেম্বর নিম্ন আদালতের রায়সহ নথিপত্র হাইকোর্টে আসে। পরে তা ডেথ রেফারেন্স হিসেবে নথিভুক্ত হয়। ওই বছরের ৬ ডিসেম্বর খালাস চেয়ে হাইকোর্টে আপিল করেন ঐশী।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত