বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

দু-একদিনের মধ্যে চালের মূল্য স্থিতিশীল হয়ে আসবে — সিলেটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক



মারুফ হাসান ::সিলেটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) শহিদুল ইসলাম চৌধুরী বলেছেন, চালের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি সাধারণ মানুষকে দিশেহারা করে তুলেছে। আমরা মাঠে নেমেছি। ব্যবসায়ীরা কথা দিয়েছেন তাঁরা বিষয়টি মাথায় রাখবেন। অধিক মূল্যে যাতে কেউ চাল বিক্রি করতে না পারে তার জন্য ৫টি মনিটরিং টিম গঠন করা হয়েছে। আশা করছি দু-একদিনের মধ্যেই চালের বাজার স্থিতিশীল হয়ে আসবে। সাধারণ মানুষ পূর্বে যেভাবে চাল ক্রয় করেছেন সেভাইবেই ক্রয় করবেন।
আজ ১০ এপ্রিল সোমবার স্থানীয় পত্রিকা দৈনিক সবুজ সিলেট এবং অনলাইন নিউজ পোর্টাল ডেইলি সিলেটে ‌চালের মূল্য অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধির সংবাদ প্রকাশিত হলে জেলা প্রশাসকের নির্দেশে সিলেটের চালের পাইকারী বাজার কালীঘাটে অভিযানে নামেন সিলেটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) শহিদুল ইসলাম চৌধুরী।
অভিযান শেষে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আমরা প্রত্যেক ব্যবসায়ীকে জানিয়ে দিয়েছি বাধ্যতামুলক ভাবে যার যার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে মূল্য তালিকা টানিয়ে রাখতে হবে। যে প্রতিষ্ঠান মূল্যতালিকা থাকবে না তাদেরকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হবে।
শহিদুল ইসলাম আরো বলেন, আপনারা জানেন গত ১০/১২দিনের অতি বৃষ্টিতে সুনামগঞ্জসহ হাওর অঞ্চলের বেশ কিছু বোরো ফসল তলিয়ে গেছে। ফলে ওই অঞ্চলের সাধারণ মানুষের মধ্যে ‌’চালের সংকট’ দেখা দিতে পারে এরকম একটা ভীতি কাজ করেছে। পাশাপাশি হাওর অঞ্চলের ছোট-বড় ব্যবসায়ীদের মধ্যে দ্রুত চাল সংগ্রহের একটা হিড়িক পড়ে যায়। তারা চাল ক্রয়ে সিলেটের বাজারে হানা দেয়ায় সাময়িক ভাবে চালের কিছুটা মূল্যবৃদ্ধি ঘটেছিলো।
তিনি আরো বলেন, ব্যবসায়ী জানিয়েছেন বাহিরের যে সকল জেলা থেকে সিলেটে চাল আসে, বৃষ্টির কারণে লোড-আনলোডে কিছু সমস্যা হচ্ছে, সিলেটে চাল আনলোড করে ট্রাকগুলো ফিরবার সময় আর ভাড়া পায় না বাধায় ট্রাকের ভাড়াও কিছুটা বেড়েছে। আজ বাজার ঘুরে আমরা দেখলাম, চালের দাম কিছুটা কমেছে। ব্যবসায়ীরা জানিয়েছে দু-একদিনের মধ্যে আরো কমে আসবে। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সার্বক্ষণিক বাজার মনিটরিং করা হবে।
অভিযানের আগে সিলেটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) শহিদুল ইসলাম চৌধুরী কালীঘাট ব্যবসায়ী সিমিতির নেতৃবৃন্দের সাথে বৈঠক করেন। বৈঠকে মূল্যবৃদ্ধির বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, সিলেট প্রেসক্লাব সভাপতি ইকরামুল কবীর ইকু, সিলেট ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ও সিলেট চেম্বারের সাবেক সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট রোটারীয়ান জিয়াউল হক, সাধারণ সম্পাদক হাজি মো. দেলোয়ার হোসেন ও কার্যকরি কমিটির সদস্য হাজি ফারুক আহমদ।
এছাড়াও সিলেটের বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাংবাদিক, ফুড কন্ট্রোলার, বিএসটিআই প্রতিনিধিসহ অভিযানের সময় উপস্থিত ছিলেন হাজি মাহমুদ আলী, হাজি আবুল হোসেন হুমায়ুন, শাহ আলম শাহীন, মো. ফজুল করিম, হাজি আবুল মহসিন নাসির ও আমিন উদ্দিন।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত