মঙ্গলবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

ঘামের দুর্গন্ধ আর নয়!



লাইফস্টাইল ডেস্ক::গরমকাল পড়লেই একগাদা সমস্যা হঠাৎ করে এসে হাজির হয়। তবে গরমে যে সমস্যা সব থেকে বেশি বিরক্তকর তা বোধহয় ঘামের দুর্গন্ধের সমস্যা।
বহু মানুষের মধ্যে ঘামের দুর্গন্ধের সমস্যা দেখা দেয়। আর এর জন্য শুধু সেই ব্যক্তিই নন, আশপাশের অনেকেই সমস্যায় পড়েন।
রাস্তা-ঘাট, ট্রেন, বাস, বাড়িতেও ঘামের দুর্গন্ধে বিরক্ত হয়ে যান চেনা পরিচিত, অপরিচিত থেকে কাছের মানুষ প্রত্যেকে। কিন্তু এর থেকে মুক্তির উপায় কোথায়?
জেনে নিন কীভাবে ঘামের দুর্গন্ধ থেকে মুক্তি পাবেন-

১) দিনের দু-বার ভালোভাবে গোসল করলে ঘাম এবং ঘামের দুর্গন্ধ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। গরমকালে দিনে দু’বার গোসল আপনার শরীরকে ঠাণ্ডাও রাখে আবার ঘামের দুর্গন্ধ থেকেও মুক্তি দেয়।
২) গোসল করে পোশাক পরার আগে শরীরটাকে ভালো করে হাওয়ায় শুকিয়ে নিন। ভেজা শরীরে কখনওই পোশাক পরবেন না। ভেজা শরীরে পোশাক পরলে, বেশি ঘাম হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। খালি শরিরে বাতাসে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন।
৩) আপনি স্লিভলেস পোশাক পরুন অথবা না পরুন, অবশ্যই শরীরের অবাঞ্ছিত লোমগুলো নির্মূল করুন। শরীরে অবাঞ্ছিত লোম ঘামের জন্ম দেয়, তা থেকেই দুর্গন্ধের সৃষ্টি হয়।
৪) গোসলের সময় অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল সাবান ব্যবহার করুন। অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল সাবান শরীর থেকে ব্যাকটেরিয়া দূর করে। যদি আপনার ত্বকে অ্যালার্জি কিংবা ইনফেকশনের ঝুঁকি থাকে, তাহলে সাবান পছন্দের সময়ে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। এতে শরীর মন দুটোই ভালো থাকবে।
৫) নাইলন কিংবা সিন্থেটিকের পোশাক একেবারেই পরবেন না। এতে ঘাম আটকে থাকে। সুতির হালকা পোশাক পরুন। সুতির পোশাক ঘাম টেনে নিয়ে শরীরকে শুকনো রাখে। জুতো পরার সময়েও সুতির মোজা পরুন।
৬) অনেক সময়ে আমাদের খাদ্যাভ্যাসের কারণেও ঘামের দুর্গন্ধ দেখা দিতে পারে। তেল-ভাজা-মশলা দেওয়া খাবার শরীরে ঘাম করে। ঘামের হাত থেকে রক্ষা পেতে এ ধরনের খাবার যতটা পারেন এড়িয়ে চলুন।

৭) শুধু ডিওডোরেন্ট ব্যবহারেই ঘামের দুর্গন্ধ থেকে মুক্তি দেয় না। তার সঙ্গে অ্যান্টিপার্সপিরেন্ট ব্যবহার করুন।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত