বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

সিদ্দিকুরের বাম চোখে আলো ফেরার আশা



নিউজ ডেস্ক:: রাজধানীর শাহবাগে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশের টিয়ারসেলে আহত সরকারি তিতুমীর কলেজের শিক্ষার্থী সিদ্দিকুর রহমানের বাম চোখে দৃষ্টি ফিরে আসার ক্ষীণ সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। রবিবার সিদ্দিকুরের চিকিৎসায় নিয়োজিত মেডিক্যাল বোর্ডের বৈঠক শেষে জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. গোলাম ফারুক উপস্থিত সাংবাদিকদের এ কথা বলেছেন।
ডা. গোলাম ফারুক বলেন, ‘সিদ্দিকুরের ডান চোখের অবস্থা একেবারেই খারাপ। গত শনিবার ওই চোখের অপারেশন করা হয়েছে। আর বাম চোখের কর্নিয়ায় ইনজুরি আছে। ওই চোখটি ওয়াশ করা হয়েছে। তবে আরো ক্লিয়ার করে তারপর অপারেশন করতে হবে।’
তিনি আরো বলেন, সকালে এমআরআই রিপোর্ট দেখে আমরা খানিকটা আশাবাদী হয়েছি। সিদ্দিকুরের বাম চোখ নিয়ে পুরোপুরি না হলেও ক্ষীণ আশা আমরা দেখতে পাচ্ছি।
চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের পরিচালক আরো জানান, সিদ্দিকুরের চিকিত্সার জন্য মেডিক্যাল বোর্ড পুনর্গঠন করা হয়েছে। রবিবার সকালে তার এমআরআই ও চোখের আল্ট্রাসনোগ্রাম করানো হয়েছে। এসব পরীক্ষা-নিরীক্ষার আগে ও পরে দুইবার বৈঠক করেছি আমরা। পরীক্ষার রিপোর্টকে আমরা ইতিবাচক মনে করছি। সিদ্দিকুরের জন্য গঠিত মেডিক্যাল বোর্ডের অন্য সদস্যরা হলেন অধ্যাপক দীপক কুমার নাগ, সহযোগী অধ্যাপক আব্দুল কাদের, সহযোগী অধ্যাপক লুত্ফুর রহমান ও সহযোগী অধ্যাপক ইফতেখার মোহাম্মদ মুনির। ইফতেখার মোহাম্মদ মুনিরের তত্ত্বাবধানে ভর্তি আছেন সিদ্দিক। তিনি বলেন, ‘তার ডান চোখের অবস্থা বেশি খারাপ ছিল। গত শনিবার থেকে আমরা ওষুধ দিচ্ছি। পরীক্ষা-নিরীক্ষার ফলের ওপর ভিত্তি করে আমরা ওষুধ কমিয়ে-বাড়িয়ে দিচ্ছি। তবে রোগী খানিকটা ট্রমায় আছেন। ফলে তার সমস্যা বা লক্ষণগুলো ঠিকভাবে বলতে পারছেন না। এ কারণে আমরা তাকে একটু সময় দিচ্ছি। যেভাবে চলছে, আশা করছি উন্নতি হবে।’
সিদ্দিকুরের চোখের সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কে জানতে চাইলে অধ্যাপক দীপক কুমার নাগ বলেন, ‘তার ডান চোখের অবস্থা খারাপ, সেটা আগেই বলেছি। রবিবার সকালে তিনি একবার বলেছেন, দেখতে পাচ্ছেন, একবার বলেছেন দেখতে পাচ্ছেন না। এটা আমাদের কাছে উন্নতির লক্ষণ মনে হয়েছে। ট্রমার কারণে হয়তো তিনি সঠিকভাবে রেসপন্স করতে পারছেন না। তবে খানিকটা ভিশন (দৃষ্টি) পাওয়ার কারণে আমরা আশাবাদী হয়েছি। তবে আমরা আশাবাদী, ডান চোখে না হলেও সিদ্দিকুর বাম চোখে হয়তো আবারও দেখতে পাবেন। আজ সোমবার সকালে মেডিক্যাল বোর্ড আবার বৈঠক করবেন বলে জানান অধ্যাপক ডা. গোলাম ফারুক।
উল্লেখ্য, পরীক্ষার রুটিন ও তারিখ ঘোষণাসহ কয়েকটি দাবিতে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে শাহবাগের জাতীয় জাদুঘরের সামনের রাস্তায় অবস্থান নেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত হওয়া সাতটি সরকারি কলেজের শিক্ষার্থীরা। এসময় তাদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ লাঠিচার্জ করে ও কাঁদানে গ্যাস ছোঁড়ে। একটি টিয়ার সেল সরাসরি সিদ্দিকুর রহমানের চোখে লাগে।
সিদ্দিকুরের জন্য মানববন্ধনেও পুলিশের বাধা : সিদ্দিকুর রহমানের চিকিত্সা ও জীবনের দায়িত্ব সরকারকে বহনের দাবিতে সরকারি তিতুমীর কলেজের শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন করেছেন। গতকাল রবিবার সকালে তারা এ মানববন্ধন করেন। এ সময় পুলিশ তাদের বাধা দিয়েছে বলে অভিযোগ করেন শিক্ষার্থীরা। তারা জানান, সকালে সিদ্দিকুরের চোখ অন্ধ করে দেওয়ার প্রতিবাদে কলেজের শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন করতে চাইলে বনানী থানা পুলিশ বাধা দেয়। পরে শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসের অদূরে মহাখালীর আমতলীতে মানববন্ধনে দাঁড়ান, সেখানেও তাদের দাঁড়াতে দেওয়া হয়নি।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত