বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

প্রেসক্লাবে নজরুল ইসলাম‘২২ ট্রাক ত্রাণে বাধা দেয়ার জবাব জনগণই দিবে’



নিউজ ডেস্ক::রোহিঙ্গাদের জন্য বিএনপির ২২ ট্রাক ত্রাণ দিতে যে বাধা দেয়া হয়েছে তার জবাব বাংলাদেশের জনগণই দিবে বলে মন্তব্য করেছেন করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান।

তিনি বলেন, ‘কয়েক দিন আগে আমরা ছোট বড় ২২ ট্রাক নিয়ে রোহিঙ্গাদের জন্য ত্রাণ দিতে গিয়েছিলাম আমাদেরকে সেই ত্রাণ দিতে দেয়া হয় নাই। আপনারা বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় দেখছেন কি কষ্টে তারা দিনাতিপাত করছে। সারা দেশের মনুষকে যখন এই পাশে আহ্বান জানানোর দরকার কিন্তু সেই আহ্বান না জানিয়ে বিএনপিকে ২২ট্রাক ত্রাণ দিতে বাধা দেয়া হয়েছে। শুধু বিএনপিকে বাধা দেয়া হয়নাই রোহিঙ্গাদের প্রাপ্ত থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে। এ জবাব কে দিবে। এর জবাব বাংলাদেশের জনগণই দিবে।’

সোমবার (১৮ সেপ্টেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত এক মানববন্ধনে তিনি এ সব কথা বলেন। বিএনপির স্থায়ী কমিটির গয়েশ্বব চন্দ্র রায়ের বাসায় দূর্গা পূজার প্রস্তুতি সভায় হামলার প্রতিবাদে এ মানববন্ধনের আয়োজন করে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি।

নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের বিভিন্ন সামাজিক অনেক সংগঠনই সাহায্য দিচ্ছে কিন্তু সরকার সহ ১৪ দলের কাউকে সেখানে ত্রাণ দিতে দেখা যায় নাই। তাদের মুখে শুধু বড় বড় কথা। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের প্রতিদিনই গলাবাজি করছে। চিবিয়ে চিবিয়ে মিথ্যা কথা বলেন। আপনি যখন রিলিফ দেন। সরকারি ভান্ডারের চাবি আপনাদের হাতে। আপনারা সেখানে পুলিশ পাহারায় রিলিফ দেবেন। কিন্তু আমরা কোন সহযোগিতা চাই নাই তার পরো আপনারা আমাদেরকে রিলিফ দিতে দেন নাই।

তিনি বলেন, ‘আমরা প্রশাসনকে বলেছিলাম আপনারা আমাদের সাথেই এই ত্রাণ বিতরণ করেন কিন্তু তারা রাজি না হয়ে আমাদেরকে বলেন আপনারা দুই তিন বস্তা বিতরণ করে ছবি তুলে চলে যান আর বাদ বাকি আমাদের গুদামে জমা দেন। তাহলে ভাবেন এবার দেশের কি হবে? যারা বিএনপি করে তাদের মধ্যে যারা মুসলমান তাদেরকে ইফতার করতে দেয়া হয়না। যারা হিন্দু তাদেরকে পূজা করতে দেয়া হয়না। যারা বৌদ্ধ তাদেরকে প্রার্থনায় বাধা দেয়া হয় বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

সভাপতির বক্তব্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের বাড়িতে পুলিশি হামলার নিন্দা জানিয়ে বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেন, ‘এই হামলা গণতন্ত্রের উপর, যে তাণ্ডব চালানো হয়েছে সেটা বাংলাদেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্বের উপর। কারণ গয়েশ্বর চন্দ্র রায় আজীবন গণতন্ত্রের পক্ষে কথা বলে চলেছেন।

তিনি বলেন, দেশ একটি সন্ত্রাসী রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। এই অবৈধ সরকারের অপসারণ ছাড়া আমাদের কোন মুক্তি নেই।

বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদুর সভাপতিত্বে এবং সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদের সঞ্চালনায় এ সময় মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন,বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী, চেয়াপার্সনের উপদেষ্টা সুকোমল বড়ুয়া,আতাউর রহমান ঢালী,সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক জয়ন্ত কুমার কুন্ড, নির্বাহী কমিটির সদস্য, আবু নাসের মোহাম্মাদ রহমতউল্লাহ, অধ্যাক্ষ আমিনুল ইসলাম, রমেশ দত্ত ও নিপুন রায় চৌধুরী প্রমুখ।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত