বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ফিরছেন খালেদা, আসছে নতুন চমক



নিউজ ডেস্ক::চিকিৎসা ও পরিবারের সাথে সময় কাটাতে এখনও লন্ডনে অবস্থান করছেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। প্রায় দু’মাস ধরে লন্ডনে অবস্থান করছেন তিনি। আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে দীর্ঘদিন পরে বেগম জিয়ার এই লন্ডন সফর নিয়ে দেশের রাজনীতির অঙ্গন আবারো বেশ সরগরম।

দলীয় সূত্র মতে, আগামী জাতীয় নির্বাচন, সহায়ক সরকারের রূপরেখা এবং এ নিয়ে সরকার বিরোধী আন্দোলন, দলের কূটনৈতিক তৎপরতা এবং সাংগঠনিক কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে রোডম্যাপ তৈরি করছেন খালেদা জিয়া। এর বাইরে আরো কয়েকটি বিষয় ফয়সালা করার পর দেশে ফিরতে চান তিনি।

এদিকে, ক্ষমতাসীন দলের নেতারা তার (খালেদা জিয়ার) এই লন্ডন সফর নিয়ে বিভিন্ন সভা সমাবেশে প্রকাশ্যে নানা রকম মন্তব্য করেছেন। কেউ দাবি করছেন বেগম জিয়া আর কখনও ফিরবেন না। কেউ বা বলছেন, লন্ডনে গিয়ে তিনি ষড়যন্ত্র করছেন।

এ বিষয়ে সম্প্রতি আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, ঈদের পরে খালেদা জিয়ার দেশে ফেরার কথা ছিলো। কিন্তু তিনি ফেরেননি। বার বার তারিখ পেছাচ্ছেন। রোহিঙ্গা ইস্যুতে তুরুস্কের ফার্স্ট লেডি, ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীসহ অনেকেই যখন তাদের পাশে এসে দাড়িয়েছে। কিন্তু খালেদা জিয়া কোথায়? তিনি তো উধাও!

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ বলেন, খালেদা জিয়ার এই সফর নিয়ে আমাদের কোনো আগ্রহ নেই। কারণ আমরা তো আর বিএনপির রাজনীতি করি না। আমরা জনগণের রাজনীতি করি, জনগণকে নিয়েই আমাদের চিন্তা।

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া কবে নাগাদ দেশে ফিরতে পারেন এবং কবে নাগাদ সহায়ক সরকারের রুপরেখা দেয়া হবে জানতে চাইলে দলের ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামন দুদু বিডি২৪লাইভকে বলেন, এখন পর্যন্ত সে রকম কোনো সিদ্ধান্তের কথা আমাদেরকে জানানো হয় নি। তবে আশা করা যায় এ মাসের মধ্যেই তিনি আসবেন এবং তারপরই সহায়ক সরকারের রূপরেখা ঘোষণা করতে পারেন। মোটামুটিভাবে সহায়ক সরকারের রূপরেখা চূড়ান্ত করা হয়েছে। তিনি আসলে তা জাতির সামনে তুলে ধরা হবে।

তবে আওয়ামী লীগ নেতাদের সমালোচনা করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রিজভী বলেন, চিকিৎসার জন্য বেগম খালেদা জিয়া লন্ডন যাবার পর বর্তমান সরকারের ঘুম হারাম হয়ে গেছে। এ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা কতই না প্রলাপ বকছেন।

প্রথমে আওয়ামী লীগের নেতারা বললেন, তিনি (খালেদা জিয়া) মামলার ভয়ে দেশ ছেড়ে পালিয়ে গেছেন, এখন তারা বলছেন ষড়যন্ত্র করতেই লন্ডন গেছেন। এরপরে হয়ত তারা আরেক নতুন তত্ত্ব দেবেন।

খালেদা জিয়া দেশে ফিরবেন না আওয়ামী লীগ নেতাদের এমন ধারণা একেবারেই ঠিক নয় মন্তব্য করে বিএনপির একটি সূত্র বিডি২৪লাইভকে জানায়, বেগম খালেদা জিয়া এ মাসেই দেশে ফিরছেন এটা শতভাগ নিশ্চিত। খালেদা জিয়া দেশে ফেরার জন্য খুবই উদগ্রীব। ষোড়শ সংশোধনী রায়ের পর তিনি ফুরফুরে মেজাজে আছেন। তবে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ফিরিয়ে আনতে ত্রয়োদশ সংশোধনীর রিভিউ করবেন কিনা সে বিষয়ে দেশে ফিরেই সিদ্ধান্ত নেবেন তিনি।

সূত্রটি আরো জানিয়েছে, দলের চেয়ারপারসনকে বিশাল শোডাউন করে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সংবর্ধনা দেওয়া হবে। এ লক্ষ্যে নীরবে ব্যাপক প্রস্তুতিও নেওয়া হচ্ছে। খালেদার গুলশানের বাসা থেকে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর পর্যন্ত রাস্তার দুই পাড়ে সারিবদ্ধ হয়ে ফুল দিয়ে খালেদা জিয়াকে বরণ করে নেওয়া হবে। খালেদার সংবর্ধনার দিন বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনগুলো ঢাকাকে মিছিলের নগরীতে পরিণত করতে চায়। পাশাপাশি বিমানবন্দরেও দলীয় নেতাকর্মীর ব্যাপক সমাগম ঘটাবে বলেও জানিয়েছেন তারা।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত