শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

নতুন বিয়ে নিয়ে মুখ খুললেন ময়ূরী



বিনোদন ডেস্ক::প্রথম স্বামী মারা যাওয়ার প্রায় দুই বছর পর দ্বিতীয়বার সংসার সাজিয়েছেন ঢাকাই ছবির একসময়ের আলোচিত নায়িকা ময়ূরী। এ বছরের আগস্ট মাসের মাঝামাঝি সময়ে তারা বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হন। তার এ স্বামীর নাম শফিক জুয়েল।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে দর্শন বিষয়ে মাস্টার্সে পড়ছেন। পরিচয়ের দেড় মাসের মধ্যেই জুয়েলকে বিয়ে করেন ময়ূরী। বর্তমানে টঙ্গীতে নতুন স্বামীর সঙ্গে সুখেই দাম্পত্য জীবন কাটাচ্ছেন তিনি। সঙ্গে রয়েছে ময়ূরীর আগের পক্ষের একমাত্র মেয়ে অ্যাঞ্জেল।

নতুন বিয়ে প্রসঙ্গে গতকাল মুখ খুলেছেন ময়ূরী। গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, বিভিন্ন অনলাইন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ হয়েছে এটি আমার তৃতীয় বিয়ে। আসলে তা সত্য নয়। প্রথম স্বামী মারা যাওয়ার পর আর কাউকে আমি বিয়ে করিনি। যে শ্রাবণ শাহের সঙ্গে আমার বিয়ে হয়েছে বলে বলা হচ্ছে তা একেবারেই ভিত্তিহীন। জুয়েলই আমার দ্বিতীয় এবং শেষ স্বামী। দোয়া করবেন তার স্ত্রী থাকাকালীনই যেন আমার মৃত্যু হয়।

আরেকটি কথা, জুয়েলই আমাকে ধর্মের পথে আসতে সহায়তা করেছে। তার উৎসাহ, অনুপ্রেরণায় আমি এখন নিয়মিত ধর্মকর্ম করি। তাবলীগেও গিয়েছি। বলতে পারেন আমি এখন পুরোদস্তুর পর্দার ভেতর চলাফেরা করি। প্রসঙ্গত, ময়ূরীর প্রথম স্বামী রেজাউল করিম খান মিলন ছিলেন টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান। ২০১৫ সালের ২৭শে সেপ্টেম্বর তিনি মারা যান। ময়ূরী সিনেমায় আত্মপ্রকাশ ঘটান ১৯৯৮ সালে ‘মৃত্যুর মুখে’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে। তার অভিনীত তিন শতাধিক ছবি মুক্তি পেয়েছে।

উল্লেখ্য, ঢাকাই ছবির সোনালি যুগের অবসানের পর নব্বই দশকের শেষ দিকে চলচ্চিত্রে অশ্লীল ছবির আগ্রাসন শুরু হয়। অশ্লীলতার যাঁতাকলে পিষ্ট হয়ে চলচ্চিত্র প্রেমীরা হলবিমুখ হতে শুরু করেন। এ সময় ঢালিউডে ঝড় তোলেন সুঠাম দেহের অধিকারী এক নায়িকা, যার নাম ময়ূরী।

অশ্লীলতার অভিযোগে অভিযুক্ত নায়িকাদের শীর্ষে মুনমুনের পরেই ময়ূরীর নাম পাওয়া যায়। ২০০৫ সালের পর চলচ্চিত্র সুস্থ ধারায় ফিরলে অনেকটাই অন্তরালে চলে যান তিনি। চলচ্চিত্রের জুনিয়র শিল্পী সেতুর মেয়ে ময়ূরী। তাকে চলচ্চিত্রে নিয়ে আসেন মাহমুদ নামে একজন প্রযোজক।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত