মঙ্গলবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

প্রধানমন্ত্রীকে বিদেশীরা পাত্তাই দেয়নি: দুদু



নিউজ ডেস্ক :: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বিদেশীরা পাত্তাই দেয়নি বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভাইস-চেয়াম্যান শামসুজ্জামান দুদু।

তিনি বলেন, ‘জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রী গেছেন মাত্র ২ মিনিট আলোচনা করেছেন ট্রাম্পের সাথে সেটাও আবার রাস্তায় দাঁড়িয়ে এবং কি কথা বলেছেন, আমরা আমেরিকার কাছে কিছু প্রত্যাশা করিনা। প্রত্যাশার জন্যেই তো সেখানে আপনি গিয়েছিলেন। ট্রাম্প, জাতিসংঘ সহ-বিশ্ববাসীকে আপনি অনুরোধ করবেন রোহিঙ্গারা যেভাবে আসছে সসম্মানে আবার যেন তাদেরকে ফেরত পাঠানো হয়। কিন্তু আপনি গিয়ে সে কথা তো বলেননি। শুধুমাত্র দাম্ভিকতা করে বলছেন আমাদের কোনো প্রত্যাশা ছিলোনা। আসলে আমেরিকা আপনাদের পাত্তা দেয় নেই, বিশ্ববাসী আপনাকে পাত্তা দেয়নি। আপনি কূটনীতিতে পুরোপুরি ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছেন।

বুধবার (২০ সেপ্টেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

“চালের দাম কমাও মানুষ বাঁচাও শীর্ষক এক মানববন্ধনে আয়োজন করে দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলন।

চালের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদ জানিয়ে শামসুজ্জামান দুদু বলেন, খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম মায়ানমারে গেছেন। মায়ানমার এখন সারা বিশ্বে ভয়ংকর শাসকদের নৃশংসতার প্রতীক হয়ে দাঁড়িয়েছে। যে চালে সাধারণ মুসলিম, হিন্দু মানুষের রক্ত মাখা সেই চাল আনতে স্ত্রীসহ কামরুল ইসলাম সেখানে গিয়েছিলেন। তাও তিনি সেখানকার চাল পাননি। যা পেয়েছেন আমরা দেখেছি পত্রপত্রিকায় খুব নিম্ন মানের চাল। একেবারে খাওয়ার অযোগ্য কিছু চাল ইতিমধ্যে দেশে ঢুকেছে। সরকার ট্রাকে করে যে চাল বিক্রি করছেন তা আতব চাল। এর আগে কোনো সরকার এই চাল বিক্রি করে নাই।

তিনি বলেন, সরকার চালের উৎপাদন করে নাকি বিদেশে রপ্তানি করে। এ কথা দেশবাসীকে তারা শুনিয়েছে। কিন্তু তার আমলে চালের যে সংকট। খাদ্যের যে সংকট, নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের যে সংকট অতীতে কোন সরকারের আমলে দেখা যায়নি। এই সরকারের কোনো রকম যোগ্যতা নেই দেশ পরিচালনার।

শুনিয়ে এসেছে চীন, ভারত, রাশিয়া আমাদের বন্ধু। কিন্তু এই সংকটে তারা আমাদের বিপক্ষে বলেও মন্তব্য করেন বিএনপির এই নেতা।

দেশে নীরব দুর্ভিক্ষ চলছে ভয়াবহ খাদ্য সংকট দেখা দিয়েছে এমন দাবি করে সাবেক এই সংসদ সদস্য বলেন, শেখ মুজিবের জামানায় কবি লিখেছিলেন ‌‌‌‘ভাত দে হারামজাদা না হলে মানচিত্রটি চিবিয়ে খাব’। তখন রাস্তাঘাটে মানুষ না খেয়ে, ফ্যান খেয়ে মৃত্যু বরণ করেছে লাখে লাখে। সেই দুর্ভিক্ষ ইতিহাস হবে বলে আমরা মনে করেছিলাম। কিন্তু শেখ মুজিবের সুযোগ্য কন্যার আমলে ৭২ সালের মত আবারও দুর্ভিক্ষ দেখা দিয়েছে।

অপশাসন, খুন, গুম, নিখোঁজ যেসব বিষয় আছে সংবিধানকে পদদলিত করার যেসব বিষয় আছে, নির্বাচনকে পদদলিত করার যে বিষয় আছে, ভোটাধিকার কেরে নেয়ার ব্যাপার যেমন আছে, ঠিক তেমনি মোটা চালের দাম ৭০ টাকা হওয়ায় খেটে মানুষের নাভিশ্বাস উঠেছে। সর্বস্তরের মানুষের মাঝে আজ হাহাকার উঠেছে। রোহিঙ্গা, আইনশৃঙ্খলার, অর্থনীতি সহ- এই সরকার সব দিক থেকে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপনের সভাপতিত্বে এবং সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শরিফুল ইসলামের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে আরও বক্তব্য দেন- ন্যাপের মহাসচিব এম গোলাম মোস্তফা ভূইয়া, বিএনপির প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক এ বি এম মোশাররফ হোসেন, সহ-তথ্য বিষয়ক সম্পাদক কাদের গনি চৌধুরী, নির্বাহী কমিটির সদস্য কামরুদ্দীন এহিয়া খান মজলিস সরোয়ার, জিনাপের সভাপতি মিয়া মো: আনোয়ার, বাগেররহাট জেলা বিএনপির উপদেষ্টা ড.কাজী মনিরুজ্জামান মনির, সংগঠনের দক্ষিণের সভাপতি রাসেল খান, গণ ঐক্যের সভাপতি আরমান হোসেন পলাশ প্রমুখ।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত