বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

সন্তান যেন কবরে একলা না বোধ করে তাই…



বিচিত্রা ডেস্ক::মৃত্যুর পরে মেয়ে যাতে কবরে একাকীত্ব বোধ না করে, সেই জন্য আগে থেকে দুই বছর বয়সী মেয়েকে নিয়ে কবর খুড়ে সেখানে সময় কাটাচ্ছেন বাবা ঝাং লিইওং। গত জুন মাসের এই ঘটনা সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপকভাবে আলোড়ন তুলেছিল।

দুই বছর বয়সী জিনলেই বংশগত কারণে থ্যালাসেমিয়া নিয়ে জন্মগ্রহণ করে। নিয়মিত রক্তদান ও ঔষধ না দিলে এই রোগে দেহের গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গপ্রত্যঙ্গ নষ্ট করে দিতে পারে। তাকে বাঁচাতে নিজের সর্বস্ব দিয়ে চেষ্টা করেও ব্যর্থ বাবা “ঝাং লিওং”।

দুই বছর বয়সী জিনলেইয়ের বাবা ঝাং লিওং জানান, তার মেয়ের চিকিৎসার জন্য নিজের সব সঞ্চিত অর্থ খরচ করে ফেলেছেন তিনি। তিনি জানান, এরই মধ্যে জিনলেইয়ের চিকিৎসায় ১ লাখ ৪০ হাজার ইউয়ান খরচ করেছি এবং অনেক অর্থ ঋণ করেছি। আর ঋণ করতে সক্ষম নই আমরা। তাই জিনলেইকে প্রতিদিন সেখানে খেলতে নিয়ে আসছি যেখানে সে চিরনিদ্রায় শায়িত হবে। এমনটাই জানা যায় “ইন্ডিপেন্ডেন্ট” এর প্রকাশিত এক খবরে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা যায়, ঝাং কবরে জিনলেইকে কোলে নিয়ে শুয়ে আছেন। কাছেই জিনলেইয়ের গর্ভবতী মা ডেং মিন বসে আছেন। এই বিষয়ে সংবাদ প্রকাশিত হলে চীনের ক্রাউডফান্ডিং সাইট শুইডিচো ডট কমে ২ লাখ ইউয়ান সংগ্রহের লক্ষ্য স্থির করে অ্যাকাউন্ট খুলে। তথ্যানুযায়ী অর্ধেকের বেশি অর্থ এরই মধ্যে উঠে এসেছে।

অনেক ইন্টারনেট ব্যবহারকারী এর সমালোচনাও করেন। একজন এ ব্যাপারে লিখেছেন, এটা আমার কাছে প্রহসনের মত মনে হয়েছে। শিশুটি নির্দোষ, এমনভাবে তাকে কবরে নিয়ে গেলে তার জন্য ভাল হবে না। বরং এতে তার মানসিক স্বাস্থ্যের ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত