সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

রোহিঙ্গা নিবন্ধন যাচাই করতে টিম পাঠাচ্ছে ইসি



নিউজ ডেস্ক::৬১ হাজার রোহিঙ্গার নিবন্ধন যাচাই করতে টিম পাঠাবে ইসি। মঙ্গলবার (১০ অক্টোবর) রোহিঙ্গা নিবন্ধনে বায়োমেট্রিক কার্যক্রম প্রক্রিয়া দেখতে কক্সবাজারে কারিগরি এ টিম পাঠাচ্ছে নির্বাচন কমিশন। জালিয়াতি রোধে নাগরিকদের তথ্য ভান্ডারের সঙ্গে বিদেশি অনুপ্রবেশকারীদের বায়োমেট্রিক যাচাইয়ের সুবিধার্থে ভবিষ্যতে ‘চলমান নিবন্ধন কাজ’ সহযোগিতার জন্য এ টিম পাঠানোর পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। এজন্য সম্প্রতি বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদফতরের মহাপরিচালক বরাবর একটি চিঠি পাঠিয়েছে ইসি সচিবালয়।

জানতে চাইলে ইসির ভারপ্রাপ্ত সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, আমাদের ১০ কোটি ১৮ লাখেরও বেশি নাগরিকের একটি তথ্য ভান্ডার রয়েছে। পাশাপাশি অনুপ্রবেশকারী রোহিঙ্গাদের জন্য বায়োমেট্রিক নিবন্ধনের কাজ হাতে নিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদফতরের অধীনে এ কাজ চলছে। রোহিঙ্গাদের ভোটার না করতে কঠোর নির্দেশনা রয়েছে ইসির।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের চলমান বায়োমেট্রিক ইসি সচিবালয় সংগ্রহ করলে বা কী প্রক্রিয়ায় তাদের বায়োমেট্রিক নেয়া হচ্ছে তা জানতে পারলে পরবর্তী সময় ইসির কাজে সহযোগিতা আসবে। তাছাড়া ইসির তথ্যভান্ডর রক্ষিত ডেটার সঙ্গে রোহিঙ্গাদের বায়োমেট্রিক যাচাই করতে পারলে কেউ কখনও ভোটার হয়েছে কিনা তা সহজেই শনাক্ত করা যাবে।

ইসি সচিব বলেন, পাসপোর্ট অধিদফতরকে আমরা চিঠি দিয়েছি। তাদের সাড়া পেলে শিগগিরই কক্সবাজারে যাবে ইসির বিশেষজ্ঞ দল। সেখানে কী সফটওয়্যার ব্যবহার হচ্ছে বা আমাদের কোনো সহযোগিতার সুযোগ রয়েছে কিনা সবকিছুর সম্ভাব্যতা যাচাই সম্ভব হবে।

জানা গেছে, মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সেনাবাহিনী নতুন করে দমন অভিযান শুরুর পর ২৫ আগস্ট থেকে পাঁচ লাখের বেশি রোহিঙ্গা সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। তাদের ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে এবং ত্রাণ ব্যবস্থাপনার জন্য তাদের বায়োমেট্রিক নিবন্ধনের কাজ চলছে; এরই মধ্যে ৬১ হাজার রোহিঙ্গা নিবন্ধন কার্ডও পেয়েছেন।
২৫ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআরের হাইকমিশনার ফিলিপ্পো গ্র্যান্ডির সঙ্গে সরকারের এক বৈঠকের পর ত্রাণ সচিব জানিয়েছিলেন মিয়ানমার থেকে আসা রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিলেও এখনই তাদের ‘শরণার্থী’ মর্যাদা দিচ্ছে না বাংলাদেশ। শরণার্থী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়া হলে কোনো দেশকে উদ্বাস্তুদের বেশ কিছু অধিকার দিতে হয়। সরকারিভাবে রোহিঙ্গাদের এতদিন ‘অনুপ্রবেশকারী’ বলা হচ্ছিল।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত