সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

চুনারুঘাটে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পুকুর দখলের প্রতিবাদে মানববন্ধন



হবিগঞ্জ সংবাদদাতা:: চুনারুঘাটে স্কুল, মসজিদ ও বাজারের একটি পুকুর দখলের প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে উপজেলা শাকির মোহাম্মদ উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। রবিবার দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার শানখলা ইউনিয়নের শাকির মোহাম্মদ উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা ক্লাস বর্জণ করে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ফজলুর রহমান তরফদার সবুজ, স্কুলের ম্যানেজিং কমিটি সভাপতি আব্দুল কদ্দুছ, সদস্য জামাল তালুকদার, কবির মিয়া, শফিক তরফদার, স্কুলের প্রধান শিক্ষক শামছুল হক চৌধুরী, শাকির মোহাম্মদ দাখিল মাদ্রাসার সুপার ও মসজিদ কমিটির সভাপতি মাওঃ আঃ মালেক। এসময় উপস্থিত ছিলেন শাকির মোহাম্মদ বাজারের স্থানীয় বাসিন্দা মকসুদ রহমান তরফদার, মামুনুর তরফদার, শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অভিভাবকসহ প্রায় ৮’শ জন লোক এ মানববন্ধন কর্মসূচিতে অংশ নেয়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ১৯৩৩ সালে শরৎ চন্দ্র বৈষ্ণব নামে এক জমিদার জনস্বার্থে শাকির মোহাম্মদ বাজারে পুকুরটি ব্যবহারের জন্য দান করে দেন। উক্ত পুকুরটি শাকির মোহাম্মদ বাজারের তিনটি প্রতিষ্ঠান এ পুকুরটি ব্যবহার করে আসছে। শাকির মোহাম্মদ বাজারের পার্শ্ববর্তী হুড়ারকুল গ্রামের সাবেক মেম্বার মহসিন মিয়া ও তার সহযোগী লিঙ্কন মিয়া, জামাল মিয়া ও আবদাল মাস্টার ওই পুকুরটি ভরাট করে দখল নিতে মসজিদের পাশে পুকুর ভরাট করে একটি টিনসেড ঘর তৈরী করে পুকুরটি তাদের দখলে নিয়ে নেয়। ফলে শাকির মোহাম্মদ উচ্চ বিদ্যালয়, শাকির মোহাম্মদ প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাজারের মসজিদ ও শাকিরমোহাম্মদ বাজারের লোকজন ওই পুকুর ব্যবহার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ফজলুর রহমান তরফদার বলেন, ৮৪ বছর পূর্বে জমিদার শরৎ চন্দ্র বৈষ্ণব এ ভূমিটি বিদ্যালয়, মসজিদ ও বাজারের জন্য দান করে যান। এখন পর্যন্ত এটি ওই প্রতিষ্ঠানগুলোর দখলে ছিল। কিন্তু গত ১৫/২০ দিন আগে সাবেক মেম্বার মহসিন মিয়ার নেতৃত্বে একটি প্রভাবশালী মহল পুকুরের পাড়ে একটি টিনসেড ঘর নির্মাণ করে দখলে নেওয়ার চেষ্টা করলে আমি তাৎক্ষণিক চুনারুঘাট থানাকে অবহিত করলে পুলিশ এতে বাধা দেয়। তারপরও ওই প্রভাবশালী মহল পুকুরটি দখলে নেওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।
সাবেক মেম্বার মহসিন মিয়া বলেন, আমাদের বাপ দাদার নামে ওই জমির একটি রেকর্ড রয়েছে। আমরা এ ক্ষমতা বলেই তা দখলে নেওয়ার চেষ্টা করছি। এটা আমাদের সম্পত্তি না জমিদারের দান করা সম্পত্তি এটি আদালতেই প্রমাণিত হবে।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত