শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

পাঁচ বছরের শিশুর হাতে বোনের মৃত্যু!



আন্তর্জাতিক ডেস্ক::পাঁচ বছরের শিশুর হাতে বোনের মৃত্যু ঘটে। আর এ ঘটনায় ফেঁসে যাচ্ছিল বাবা। দুই বছর পর জানা গেল আসলে তার বড় ছেলে মেরে ফেলেছিল তার মেয়েকে। জানা গেছে, ২০১৫ সালে ঘটনার সময় পাঁচ বছর বয়সী ভাই শ্বাসরোধ করে মেরে ফেলেছিল নিজের দুই বছর বয়সী ছোট বোনকে। যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস অঙ্গরাজ্যের ওতাউগা এলাকায় ঘটনাটি ঘটেছে।

ওয়াশিংটন পোস্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, বছর খানেক আগে শিশুকন্যা এলি হত্যার অভিযোগে বাবা এন্থনি মাইকেল স্যান্ডার্সকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। এন্থনি মাইকেল কম্পিউটার গেমসে আসক্ত বলে পুলিশ ধারণা করেছিল হয়তো খেলায় বিঘ্ন ঘটানোয় তাকে মেরে ফেলা হয়েছিল। কিন্তু তাদের সাত বছর বয়সী ছেলে গত বছর মায়ের কাছে স্বীকার করেছিল কিভাবে ভুল করে মেরে ফেলেছিল ছোট বোনকে। ঘটনার সময় ছেলেটির বয়স ছিল পাঁচ বছর।

ঘটনার বিবরণে জানা গেছে, বিছানায় দুই ভাইবোন খেলার এক পর্যায়ে একটি বালিশ চলে যায় বোনের মুখে। আয়তাকার বালিশটি বেশ ভারি হওয়ায় সরাতে পারছিল না ভাই। তখন শ্বাসবন্ধ হয়ে তার বোন মারা যায়। আয়তাকার বালিশটির ভেতরে ভারি কিছু জিনিস থাকায় সেটি সচরাচর বালিশের চেয়ে ভারি হয়ে যাওয়াতে ছোট্ট ছেলেটির পক্ষে তা সরানো সম্ভব হয়নি। বাবা তখন পাশের রুমে কোনো কাজে ব্যস্ত ছিলেন আর মা আর্ট শো দেখতে গিয়েছিলেন।

আদালতের নথিপত্রে জানা গেছে, সাত বছর বয়সী ছেলেটি স্বীকার করেছে সে দুর্ঘটনার কথা। বছরখানেক আগে মাকে বলা ছাড়া আর কাউকে জানায়নি। কারণ সে ভয় পাচ্ছিল এতে সে ঝামেলায় পড়বে। দুর্ঘটনাবশত হত্যায় জড়িত আসামি শিশু হওয়ায় তার ছবি ও নাম প্রকাশ করা থেকে বিরত আছে পুলিশ ও তদন্তকারী কর্মকর্তারা।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত