রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

বিএনপির সঙ্গে কখনই সংলাপে বসবে না আ’লীগ



নিউজ ডেস্ক::বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) সাথে কোনো ধরনের সংলাপে বসতে চায় না ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পূর্বে বিএনপিকে সংলাপে বসার জন্য আহ্বান করেছিলেন আওয়ামী লীগ। তখন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার আহ্বানে সাড়া দেয়নি বিএনপি। তাছাড়াও বিএনপি সংলাপে না বসে এবং নির্বাচন ঠেকাতে কর্মসূচির নামে দেশে জ্বালাও পোড়াও করেছে। এসব কারণে আওয়ামী লীগ আর বিএনপির সাথে সংলাপে বসতে চায় না বলে জানিয়েছে দলটির শীর্ষ নেতারা।

সূত্রে জানা যায়, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করার লক্ষ্যে নির্বাচন কমিশন ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ, বিএনপিসহ সকল নিবন্ধিত দলের সাথে সংলাপ করেছে। তবে দেশের রাজনৈতিক সংকট নিয়ে এখন পর্যন্ত দেশের বড় দুই দলের (বিএনপি-আওয়ামী লীগ) মধ্যে কোন সংলাপ করতে দেখা যায় নি। রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করছেন, নির্বাচনে যাওয়ার আগে একবার হলেও এই দুটি দলের এক সঙ্গে বসে একটা সমাধানে আসা জরুরি। এতে দেশ ও জাতির উন্নতি হবে।

আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতাকর্মীরা বিএনপির সাথে সংলাপে বসা নিয়ে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন সভা, সেমিনারে অনেক কথা বলেন। এতেই স্পষ্ট হয় আওয়ামী লীগ-বিএনপির সঙ্গে কোন ধরনের সংলাপে বসতে আগ্রহী নয়। এর কারণ হিসেবে আওয়মী লীগ, বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে দোষারোপ করছেন। তাদের দাবি, আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনা বিএনপিকে ডেকেছে কিন্তু তারা আসেনি। বিএনপি সংলাপে না বসে নির্বাচন ঠেকাতে কর্মসূচির নামে তারা দেশে জ্বালাও পোড়াও করেছে।

আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতারা আরও বলেন, দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর বিএনপি যে জ্বালা পোড়াও করেছে এবং একের পর এক হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে তাতে তাদের সাথে সংলাপের পথ বন্ধ হয়ে গেছে।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপির সাথে সংলাপের কোনো পরিবেশ নাই। সেই পরিবেশ তারাই নষ্ট করেছে। সুতারং তাদের সঙ্গে আর সংলাপ হবে না।

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, নির্বাচন প্রসঙ্গে বিএনপির সাথে আলোচনার কিছু আছে বলে আমি মনে করি না। নির্বাচন সরকার আয়োজন করছে না। নির্বাচন আয়োজন করছে নির্বাচন কমিশন। তারা ইসির সাথে বসেছে। নির্বাচন কমিশন চাইলে তারা (বিএনপি) আবারও নির্বাচন কমিশনের সাথে বসতে পারবে। সরকারের সাথে তাদের কোনো আলোচনার বিষয় আছে বলে আমি মনে করি না।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত