বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

কমলগঞ্জে কলেজ ছাত্রীর উপর ছাত্রলীগ নেতার হামলা : আটক ১



কমলগঞ্জ প্রতিনিধি::মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে নিয়মিত রাস্তাঘাটে উত্যক্ত করার বিচার চাওয়ায় ক্লাস থেকে বের হওয়ার পর উন্মুক্ত বিশ্ব বিদ্যালয়ের একাদশ শ্রেণির এক ছাত্রীর উপর হামলা চালিয়েছে ছাত্রলীগ নেতা জাকারিয়া হাবিব (২৫)। সে আদমপুর ইউনিয়নের জালালপুর গ্রামের আব্দুল খালিকের ছেলে। তার মামা কমলগঞ্জ সদর ইউপির বর্তমান চেয়ারম্যান। ঘটনার পর পালানোর সময় ছাত্ররা নওশাদ মিয়া (১৭) নামের এক বখাটেকে ধরে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে। শুক্রবার (১৭ নভেম্বর) দুপুর ১২টায় এ ঘটনাটি ঘটেছে কমলগঞ্জ গণ মহাবিদ্যালয়ে।

কমলগঞ্জ গণ-মহাবিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, কমলগঞ্জ পৌরসভার রামপাশা গ্রামের রইছ মিয়ার মেয়ে তানিয়া আক্তার এ কলেজের অধীনে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে একাদশ শ্রেণিতে পড়া শুনা করছিল। প্রতি শুক্রবার সে ক্লাসে আসা যাওয়ার সময় আদমপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক জাকারিয়া হাবিব রাস্তায় নানাভাবে তাকে উত্যক্ত করতো। এ ঘটনায় তানিয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে উত্যক্তকারী ছাত্রলীগ নেতার বাবা আব্দুল খালিকের কাছে বিচার প্রার্থনা করেছিলেন। বিচার প্রার্থনা করায় ক্ষিপ্ত হয়ে প্রতিশোধ নিতে শুক্রবার দুপুর ১২টায় তানিয়া ক্লাস থেকে বের হওয়ার সময় কলেজের বারন্দায় এসে জাকারিয়া অতর্কিতভাবে তাকে (তানিয়াকে) কিল ঘুষি মেরে মাটিতে ফেলে দেয়। সাথে সাথে তানিয়া জ্ঞান হারিয়ে ফেললে তাকে দ্রুত কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। অন্যদিকে তানিয়ার সহপাঠী ছাত্ররা ক্লাস থেকে বেরিয়ে ধাওয়া করলে আক্রমনকারী ছাত্রলীগ নেতা জাকারিয়া মোটরসাইকেল যোগে দ্রুত পালিয়ে যায়। তবে ছাত্ররা হামলাকারীর সহযোগী নওশাদ মিয়াকে (১৭) ধরে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে। সে কমলগঞ্জ পৌরসভার আলেপুর গ্রামের রোস্তম মিয়ার ছেলে।
আহত ছাত্রীর ভাই আশিকুর রহমান বলেন, বেশ কিছুদিন ধরে বখাটে জাকারিয়া তার বোনকে নানাভাবে উত্যক্ত করছিল। বোনের কাছ থেকে অভিযোগ পেয়ে সে উত্যক্তকারী জাকারিয়ার বাবা আব্দুল খালিকের কাছে বিচার প্রার্থনা করেছিল। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে প্রতিশোধ নিতেই তিন সাথী নিয়ে পরিকল্পিতভাবে কলেজের শ্রেণিকক্ষের বারন্দায় প্রকাশ্যে এসে এভাবে হামলা চালিয়েছে তানিয়ার উপর। আশিকুর রহমান আরও বলেন, এ ঘটনায় তার পরিবার থানায় লিখিত অভিযোগ দিবেন।
কমলগঞ্জ গণ-মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ কামরুজ্জামান মিঞা এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, প্রথমে ছাত্রীকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়। পরে বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবহিত করলে তিনি কলেজে পুলিশ পাঠান। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে খবর পেয়ে কমলগঞ্জ থানা পুলিশ দ্রুত কমলগঞ্জ গণ-মহাবিদ্যালয়ে এসে ধরে রাখা এক বখাটেকে আটক করে। অভিযোগ সম্পর্কে জানার চেষ্টা করেও অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা জাকারিয়াকে পাওয়া যায়নি। তবে কমলগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি রাহাত ইমতিয়াজ (রিপুল) বলেন, জাকারিয়া হাবিব আদমপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক। ঘটনা সত্য হলে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদুল হক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ছাত্রদের হাতে ধৃত বখাটেকে আটক ও মূল হামলাকারীকে গ্রেফতারের জন্য কমলগঞ্জ থানা পুলিশকে তিনি নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি আরও বলেন, বিকালে আহত ছাত্রীকে দেখতে যাবেন।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত