রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

আত্মপক্ষ সমর্থনে আদালতে আর বক্তব্য দিতে পারবেন না খালেদা জিয়া



নিউজ ডেস্ক::জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির দুই মামলায় হাজিরা দিতে আদালতে যাবেন না বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) হরতালের পর রাজধানীর পুরান ঢাকার বকশিবাজারে স্থাপিত অস্থায়ী বিশেষ জজ আদালতে যাওয়ার কথা ছিল তার। এছাড়া আদালতে খালেদা জিয়া আর আত্মপক্ষ সমর্থন করে বক্তব্য দিতে পারবেন না।

তবে এর আগে নির্দিষ্ট সময়ে আদালতে হাজির না হওয়ায় বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) দুপুরে বকশীবাজারের আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার ৫নং বিশেষ জজ ড. আখতারুজ্জামান এ গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন।

বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) দুপুর ১টার দিকে খালেদা জিয়ার মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শামসুদ্দিন দিদার বিডি২৪লাইভকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদ ও অবিলম্বে বর্ধিত দাম প্রত্যাহারের দাবিতে বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত হরতাল পালন করছে সিপিবি-বাসদ ও বাম মোর্চাসহ বাম দলগুলে। ওই হরতালে সমর্থন জানিয়েছে বিএনপি। এই অবস্থায় খালেদা জিয়ার আদালতে যাওয়া নিয়ে অস্পষ্ট তৈরি হয়।

পরে বিএনপি চেয়ারপারসনের আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া জানিয়েছিলেন, হরতালের সময় আদালতে যাওয়া হচ্ছে না। পরিস্থিতি বিবেচনা করে ২টার পর বেগম খালেদা জিয়া আদালতে যেতে পারেন।

পুরান ঢাকার বকশীবাজার আলিয়া মাদ্রাসায় স্থাপিত ঢাকার পাঁচ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক ড. আখতারুজ্জামানের আদালতে এ দুটি মামলার বিচারকাজ চলছে। আজ জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার আত্মপক্ষ সমর্থনের অসমাপ্ত বক্তব্য দেয়া এবং জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাক্ষীকে পুনরায় জেরা করার জন্য দিন ধার্য রয়েছে।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই খালেদা জিয়া ও তার ছেলে তারেক রহমানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে রমনা থানায় মামলাটি দায়ের করা হয়। পরের বছরের ৫ আগস্ট ৬ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল হয়।

আর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে তিন কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা লেনদেনের অভিযোগ এনে খালেদা জিয়াসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে ২০১০ সালের ৮ আগস্ট তেজগাঁও থানায় মামলা করে দুদক। ২০১২ সালের ১৬ জানুয়ারি মামলা তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের উপ-পরিচালক হারুন অর রশিদ তাদের চারজনের বিরুদ্ধেই আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত