বৃহস্পতিবার, ১৬ অগাস্ট ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১ ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশের জন্য ব্লাড ডোনেশন ফিচার আনল ফেসবুক!



তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক::ফেসবুক বিশ্বের একটা বেশ ভাল মানের কমিউনিটি হবে এমনটাই সবার প্রত্যাশা। এই কথাটাই বরাবর বলে এসেছেন ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জুকারবার্গ। আর এই ধারণাটাকে মাথায় রেখেই ফেসবুকে একে অপরকে সুরক্ষিত রাখতে, একে অপরের পাশে দাঁড়াতে বেশ কিছু নতুন ফিচার নিয়ে এসেছে।

নতুন দুটি প্রোডাক্ট এল বাজারে। Mentorship and Support (পরামর্শ প্রোগ্রাম এবং সহায়তা)। যেখানে যাকে মেন্টর করা হচ্ছে, আর যিনি মেন্টর করছেন তারা একই প্লাটফর্মে আসবেন, একসঙ্গে কাজ করবেন, পাশাপাশি আসবে এনজিও কোম্পানি গুলোও। লক্ষ্যে পৌঁছতে যাঁদের সাপোর্ট দরকার, পরামর্শ দরকার, তাদের কাজে লাগবে এই সুবিধা। কারণ পরামর্শ দেবেন যাঁরা, পাশে থাকবেন যাঁরা, তাঁরাও থাকছেন একই প্লাটফর্মে।

ফেসবুক তাদের পাইলট প্রজেক্ট চালু করছে শিক্ষাক্ষেত্রে আইমেনটর এবং ক্রাইসিস রিকভারির ক্ষেত্রে ইন্টারন্যাশনাল রেসকিউ কমিটি-কে পাশে নিয়ে। একটা বিষয় মাথায় রাখা দরকার, এটি শুধুমাত্র ১৮ বছরের ওপরে যাঁদের বয়স, তাঁদের জন্য।

এছাড়াও ফেসবুক তার Nonprofit Fundraising Tools (ডোনেট বাটন এবং ননপ্রফিট ফান্ডরাইজার্স) চালু করতে চলেছে বেশ কিছু দেশে। এরমধ্যে থাকছে, যুক্তরাজ্য, আয়ারল্যান্ড, জার্মানি, ফ্রান্স, স্পেন, ইতালি, পোল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস, বেলজিয়াম, সুইডেন, পর্তুগাল, ডেনমার্ক, নরওয়ে, অস্ট্রিয়া, ফিনল্যান্ড এবং লুক্সেমবুর্গ।

পার্সোনাল ফান্ডরাইজার্সও থাকছে, যুক্তরাজ্য, আয়ারল্যান্ড, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, জার্মানি, ফ্রান্স, স্পেন, ইতালি, পোল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস, বেলজিয়াম, সুইডেন, পর্তুগাল, ডেনমার্ক, নরওয়ে, অস্ট্রিয়া, ফিনল্যান্ড, লুক্সেমবুর্গ এবং নিউজিল্যান্ড এর মতো দেশে।

এছাড়াও কমিউনিটি হেল্প এপিআই চালু করতে চলেছে ফেসবুক। পাবলিক কমিউনিটি থেকে ডিজাস্টার রেসপন্স সংস্থাগুলি ডেটা সংগ্রহ করতে পারে। ফলে কোনও নির্দিষ্ট সমস্যায় কেউ পড়লে, তার কাছে সাহায্য পৌঁছনো সহজ হবে।

সর্বশেষ ফেসবুক যে তথ্যটি জানিয়েছে, ২০১৮ সালের শুরুতে বাংলাদেশের জন্য ব্লাড ডোনেশন ফিচার আনছে ফেসবুক।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত