বৃহস্পতিবার, ১৬ অগাস্ট ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১ ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

তাহিরপুরের বিভিন্ন পর্যটনস্পটে সুটিংয়ের পোষাকে অশ্লিলতার অভিযোগ



তাহিরপুর সংবাদদাতা:: সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলায় বিভিন্ন পর্যটনস্পটে সুটিংয়ে নায়ক-নায়িকাদের পোষাকে অশ্লিলতার অভিযোগ। ঢাকা থেকে বিভিন্ন নাটক,চলচিত্র,মিউজিক ভিডিওর সুটিং করতে আসা বিশেষ করে নায়িকাদের শরীরের পোষাক এতটাই খারাপ যে অশ্লিলতা কে ছাড়িয়ে যাচ্ছে। তারা তাদের নির্দিষ্ট এলাকার ভিতরে না থেকে প্রকাশে কাপপিস পোষাক পরে অভিনয় করায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে স্থানীয়রা এ নিয়ে বিভিন্ন আইডি থেকে বিরুপ মন্তব্য করছে। এ নিয়ে ঐসব এলাকায় আলোচনা-সমালোচনার ঝড় উঠেছে। এর ফলে আগত পর্যটক ও দর্শনার্থী এবং স্থানীয় সকল বয়সের লোক জনের মনে ক্ষুবের সঞ্চার হচ্ছে। সেই সাথে গ্রামীন এলাকার সাভাবিক পরিবেশ কে ধংশের দিকে নিয়ে যাচ্ছে বলে মনের করেন সচেতন হাওরবাসী। এসব স্থানে আসা হাজার হাজার দর্শনার্থী ও স্থানীয় জনসাধারনের পদচারনায় মখুর থাকলেও দিন দিন পরিবেশ ভিন্ন রুপ ধারন করছে।
স্থানীয় এলাকাবাসী ও একাধিক সূত্রে জানাযায়,এখন এই উপজেলায় সুন্দর্য পিপাসু দর্শনার্থী ও পর্যটকদের আগমনে প্রান চাঞ্চাল তা বিরাজ করছে। এ উপজেলার এখন ট্যাকেরঘাটে ডিসি পার্ক,টাংগুয়া হাওর,বারেকটিলাসহ দর্শনীয় পর্যটন স্থান গুলোতে হাজার হাজার পর্যটক ও দর্শনার্থীগন সাভাবিক পোষাক পরছে। উত্তরে হিমেল হাওয়ায় শীতের এই আবহাওয়ায় সকাল দুপুর সন্ধ্যায় মনমাতানো পরিবেশ উপভোগ করছেন। কিন্তু নাটক,চলচিত্র,মিউজিক ভিডিওর সুটিং করতে গিয়ে আধুনিকতার নামে বিশেষ করে নায়িকাদের পোষাক (শরীরের অনেক অংশ দেখা যায় ) যা গ্রামীন পরিবেশকে অশ্লিলতার দিকে ঠেলে দিচ্ছে। এতে করে ছোট ছোট শিশু থেকে শুরু করে উঠতি বয়সী যুবক ও মধ্য বয়সী পুরুষরাসহ নানান বয়সী লোকজন অশ্লীল পোষাকে পরা অবস্থায় ঐসব নায়িকাদের দেখার জন্য হুমরী খেয়ে পরছে। এতে করে হাওরপাড়ের গ্রাম বাংলার সহজ সরল মানুষের জীবন প্রনালীতে পোষাকের ক্ষেত্রে বিরুপ প্রভাব পরবে বলে মনে করেন হাওরপাড়ের সচেতন লোকজন। হুসাইন আহমদ,কিবরিয়া হাসান,মায়িসা আক্তার,জামাল উদ্দিনসহ স্থানীয় ঐ এলাকার অনেকেই বলেন,ডিজিটাল যুগে সবাই নিত্য নতুন পোষাক পরে কিন্তু শরীল দেখা যায় এমন পোষাক পরা সঠিক কাজ না।
আর টেলিভিশন ও সিডিতে প্রচারিত নাটক ও ছবিতে নায়ক-নায়িকাদের অনুশরন করেই বড় হচ্ছে উঠতি বয়সী যুবক-যুবতিরা। যার জন্য গ্রামেও ইফটিজিং সহ নানান ঘটনা বাড়ছে। আর এমন অবস্থা বিরাজ করলে এখানে দর্শনার্থী ও পর্যটকগন আসা বন্ধ হয়ে যেতে পারে। ঐসব এলাকার অভিবাবকগন বলেন,হাওরপাড়ে এখন বাস্থবে এই ভাবে ঐসব নোংরা পোষাক গুলো পরিহিত অবস্থায় নায়িকাদের দেখলে ছোট ছোট শিশু থেকে শুরু করে উঠতি বয়সী যুবকদের মধ্যে এর বিরুপ প্রভাব বিস্তার করবে ভেবে দূষচিন্তা গ্রস্থ হয়ে পড়ছি। আমরা আমাদের ছেলে ও মেয়েদের পর্দা মধ্যে রেখে বড় করছি। তাই এসব বন্ধ করা না হলে হাওর পাড়েও আধুনিকতার নামে পোষাকে নোংরামী দিন দিন বেড়ে যাবার আংশকা রয়েছে।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত