বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

বিজয় দিবসে দুর্বৃত্তদের পেট্রোল বোমায় দগ্ধ ২



মোঃ মঞ্জুরুল ইসলাম, ময়মনসিংহ থেকে: ময়মনসিংহের গৌরীপুরে দুর্বৃত্তদের পেট্রোল বোমা হামলায় এক রিকশাচালক ও পথচারি দগ্ধ হয়েছেন। গুরুতর অবস্থায় দগ্ধ রিকশা চালককে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। শনিবার (১৬ ডিসেম্বর) রাত ৮ দিকে এ ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার অচিন্তপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম অন্তরের সাথে স্থানীয় ইউনিয়ন যুবলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের বিরোধ চলে আসছিলো। শনিবার বিজয় দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে যুবলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগকে আমন্ত্রণ না জানিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান এককভাবে সকল কর্মসূচি পালন করেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে সন্ধ্যায় শাহগঞ্জ বাজারে অবস্থিত অচিন্তপুর ইউনিয়ন পরিষদে একদল সশস্ত্র কর্মী গিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে।

ইউনিয়ন যুবলীগ ও স্বেচ্ছাসেবকলীগের কর্মীরা ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে শ্লোগান দিয়ে পরিষদ ত্যাগ করলে জড়ো হতে থাকে চেয়ারম্যানে পক্ষে লোকজন। রাত পৌনে ৮ টার দিকে শাহগঞ্জ বাজারে একটি প্রতিবাদ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি বাজারের সড়ক প্রদক্ষিণ করার সময় ৪-৫ টি পেট্রোল বোমা হামলার ঘটনা ঘটে। পেট্রোল বোমা হামলায় লোকজন দিক-বেদিক ছুটাছুটি করে পালাতে শুরু করে। ওই সময় রিকশায় যাত্রীর জন্য অপেক্ষমান মতিউর রহমান (২৮) ও পথচারি রফিকুল ইসলামের শরীরে পেট্রোল বোমার আগুন ধরে যায়। মতিউর রহমান অচিন্তপুর ইউনিয়নের পাঁচকাহনিয়া গ্রামের আবদুর রশিদের ছেলে। রফিকুল ইসলাম শ্যামগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য ও অচিন্তপুর ইউনিয়নের খালিজুড়ি গ্রামের বাসিন্দা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে, রিকশাচালক মতিউর রহমানের শরীরে একটি পেট্রোল বোমা পড়ার পর তার শরীরে আগুন ধরে যায়। ওই সময় সে সড়ক জুড়ে দৌড়াদৌড়ি শুরু করে। পরে স্থানীয়রা পানি দিয়ে আগুন নিভিয়ে তাকে গৌরীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। আহত রফিকুল ইসলামকেও নেওয়া হয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে।

গৌরীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. সৈয়দা মাখনুন জাহান বিডি২৪লাইভকে জানান, রাত সাড়ে ৮ টার দিকে দগ্ধ অবস্থায় দুই ব্যক্তিকে নিয়ে আসা হয়। এদের মধ্যে মতিউর রহমানের শরীর ২৫ থেকে ৩০ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহে পাঠানো হয়েছে। রফিকুল ইসলাম নামের অপর ব্যক্তির অল্প পরিমাণের দগ্ধ হওয়ায় তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

গৌরীপুর থানার ওসি মো. দেলোয়ার আহমদ এ বিষয়ে বলেন, ঘটনাস্থল থেকে কাঁচের টুকরো ও আরো কিছু আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। অভ্যন্তরীণ বিরোধের জের ধরে মিছিলে ৪-৫ টি পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করা হয়। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রাখা হয়েছে।

নিউজ সম্পর্কে আপনার বস্তুনিস্ঠ মতামত প্রদান করুন

টি মতামত